Category: হজ্ব

উত্তরঃ- শরিয়তের নীতিমালা অনুযায়ী হজের নিসাব পরিমান মালের মালিক হওয়ার দ্বারা হজ্ব ফরজ হয়। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সুরতে যেহেতু উক্ত ব্যাক্তি হজ্বের সময় নিসাব পরিমান মালের মালিক,তাই তার উপর হজ্ব ওয়াজিব। কিন্তু সে যেহেতু অসুস্থ তাই অন্...

উত্তর :- হজ আমৃত্য ফরজ যদি কোন কারণবশত নিজে হজ করতে না পারে।তাহলে তার জন্য অসিয়ত করে যাওয়া জরুরী। তাই প্রশ্নোক্ত ব্যক্তি হজ করতে না পারলে অসিয়ত করে যাবে। আর সুযোগ হলে হজ করে নিবে। তবে বদলী হজ করারও সুযোগ আছে।   আল মুহিতুল বুরহানি - ৩...

উত্তর :- যদিও হজ দ্বারা সমস্ত গুনাহ মাফ হয়ে যায় কিন্তু আল্লাহর হক এবং বান্দার হক মাফ হয় না। সুতরাং হজ করার দ্বারা নামায রোযা মাফ হবে না। এগুলো কাযা করতে  হবে।   ফাতহুল বারী - ৪/৭৮; মিশকাতুল মাসাবীহ - ২৩০; ফাতাওয়া মাহমুুদিয়া - ১০/৩২০।...

উত্তর :- প্রত্যেক মুসলমানের উপর হজ একবারই ফরজ হয়। তাই উক্ত ব্যক্তিকেও একবারই হজ করতে হবে।   ফাতাওয়া হিন্দিয়া- ১/৩২৭; ফাতাওয়া তাতারখানিয়া - ৩/৪৬৭; মাজমাউল আনহার - ১/৩৮৬;...

উত্তর :- যমযমের পানি দাড়িয়ে পান করাটা হাদিস দ্বারা প্রমাণিত। তাই দাড়িয়ে পান করাই মুস্তাহাব।   আল ফিকহুল হানাফি - ১/৪৮৩; রদ্দুল মুহতার - ২/২০২; কিতাবুল ফাতাওয়া - ৪/৬১;...

উত্তর :- ইসলামি শরীয়তে মূলনীতি অনুযায়ী হজের সফর  ও সফরকালীন সময়ে পারিবারিক খরচ বহন করার মত আর্থিক সচ্ছলতা থাকলে হজ ফরজ হবে। তাই আপনার প্রয়োজনের অতিরিক্ত জমি বিক্রি করে আপনি হজের সফর ও সফরকালীন সময়ে পারিবারিক খরচ আদায়ে সক্ষম হন। তাহলে আপনার উপর হজ ...

উত্তর :- তাওয়াফে যিয়ারত করা ফরয। শরীয়তে তিনবার বা তার চেয়ে কমসংখ্যক তাওয়াফ ভুলে গেলে তার উপর একটি দম ( ছাগল ) ওয়াজিব হবে।   ফাতাওয়া হিন্দিয়া - ১/৩১০; আল বিনায়াহ - ৫/২৬২; আল ফিকহুল হানাফি - ১/৪৭১।...

উত্তর :-  তাওয়াফের পর দুই রাকাত নামায আদায় করা ওয়াজিব। আর তা মাকামে ইবরাহিমের পিছনে পড়া ‍সুন্নাত। আর এটা হজের আমলের অন্তর্ভুক্ত। সুরা বাকারা - ১৬৫; আর বাহরুর রায়েক - ২/৫৮; মুআল্লিমুল হুজ্জাজ- পৃ. ১৪১;।...

উত্তর :- হজে সাঈ করা ওয়াজিব। আর হজ পালনের ক্ষেত্রে কোন ওয়াজিব বিধান ছুটে গেলে দম দেওয়া ওয়াজিব। তাই উক্ত ব্যক্তিকে দম দিতে হবে।   আল হিদায়া - ১/২৫৫; ফাতাওয়া হিন্দিয়া - ১/৩১১; ফাতাওয়া হাক্কানিয়া - ৪/২৬৭।...

উত্তর:-হজ ও ওমরা ব্যতীত অন্য কোন প্রয়োজনে মীকাত অতিক্রম করার জন্য ইহরাম বাঁধা আবশ্যক নয়।  সুতরাং প্রশ্নেবর্ণিত ব্যবসার উদ্দেশ্যে গমনকারী ব্যক্তির জন্য এহরাম বিহীন জেদ্দায় প্রবেশ জায়েয হবে।  - মাজমায়ুল আনহুর ১/৪...

উত্তর :- হাদিস শরীফে ইরশাদ হয়েছে যে ব্যক্তি কোরবানি করবে সে যেন ঈদের চাদ ওঠার পর হতে চুল, গোফ, ও নখ ইত্যাদি না কাটে। তাই বিধানটা কেবল কুরবানি দাতার জন্য। তবে অন্যরাও যদি এ আমলটা করে তবে তারাও সওয়াব পাবে বলে আশা করা যায়।   আল ফিকহুল ইসলা...

উত্তর:- হজের ওয়াজিব সমুহ আদায়কালীন প্রয়োজনে সামান্য বিশ্রাম নেয়া যেতে পারে। এতে কোন অসুবিধা নেই।  সুতরাং প্রশ্নেবর্ণিত সুরতে সাঈর মাঝখানে ৫/১০ মিনিট বিশ্রাম নিলে সাঈ আদায় হয়ে যাবে।   - আল ফিকহুল হানাফী ফি সাউবি...

উত্তর:- এহরাম অবস্থায় সুগন্ধি ব্যবহার করা নিষেধ। সুগন্ধিযুক্ত খাবার খাওয়া নিষেধ নয়।  সুতরাং প্রশ্নেবর্ণিত সুগন্ধিযুক্ত খাবার তথা পোলাও বিরিয়ানি ইত্যাদি খাওয়া যাবে। এতে কোন অসুবিধা নেই।  -ফাতওয়ায়ে আলমগিরী ১/৩০৫,...

উত্তর :- শরয়ী ভাষ্য অনুযায়ী হজের নেসাব পরিমাণ মালের মালিক হওযার দ্বারা হজ ফরজ হয়। তাই জন্মান্ধ কেউ নেসবা পরিমাণ মালের মালিক হলে তার উপরও হজ ফরজ। তবে সে জন্মান্ধ হওয়ায় অন্য কারো দ্বারা সে হজ করাবে।   ফাতাওয়া হিন্দিয়া - ১/২৮২; ফাতাওয়া সিরাজি...

উত্তর:-ঋতুস্রাব অবস্থায় মসজিদে চলাচল নিষিদ্ধ। তাওয়াফ যেহেতু মসজিদে হয়,তাই প্রশ্নেবর্ণিত সুরতে উক্ত মহিলা তাওয়াফ বন্ধ করে হজের অন্যান্য কাজ করবে এবং হজের সময় শেষ হওয়ার পূর্বে ঋতুস্রাব বন্ধ হয়ে গেলে পূনরায় তাওয়াফ করে নিবে। অন্যথায় দম হিসেবে একট...