Category: লেনদেন

উত্তর : হাঁ, নষ্ট ডিমের টাকা দোকানি থেকে ফেরত নেওয়া জায়েয হবে। কেননা এই ডিমের বিক্রিই শুদ্ধ হয়নি। -কিতাবুল আছল ২/৫০০; আলমুহীতুল বুরহানী ১০/১২১; ফাতাওয়া হিন্দিয়া ৩/৮৪; আলবাহরুর রায়েক ৬/৫৪-৫৫; রদ্দুল মুহতার ৫/...

উত্তর : প্রশ্নোক্ত ক্ষেত্রে ঐ ব্যক্তির কর্তব্য হল, যথাসম্ভব হিন্দু করযদাতার ঠিকানা বের করে তার হাতে পাওনা টাকা পৌঁছে দিতে চেষ্টা করা। যথাযথ চেষ্টা করেও যদি তার কোনো সন্ধান পাওয়া না যায় তাহলে নিজের দায়মুক্তির নিয়ত...

উত্তরঃ- মুদারাবার মধ্যে জোগানদাতার এবং শ্রমদাতার চুক্তি সাপেক্ষে লভ্যাংশের বন্টন করা বৈধ। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সুরতে মূল টাকা বা পুঁজি ছাড়া লভ্যাংশের অর্ধেক অর্ধেক ভাগ-বন্টন করা বৈধ।   -আল হিদায়াহঃ-৩/২৫৭, আস সুনানুল কু...

উত্তরঃ- শরয়ী দৃষ্টিতে প্রত্যেক এমন ঋন যা মুনাফাকে চায় তাই সুদ । অর্থাৎ মূল টাকা বাকি রেখে তা থেকে মুনাফা লাভ করাটা হলো সুদ সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত ইটের ভাটায় দুই লক্ষ টাকা এই শর্তে দেওয়া যে তাকে প্রতি গাড়িতে ‍দুই লক্ষ টাকা লাভসহ এক...

উত্তরঃ- ফল পরিপুর্ণতায় আসার পর গাছে রেখে দেওয়ার শর্তে ফল ক্রয় করা যদিও নাজায়েয, তবে উহা ব্যাপক প্রচলনের কারণে ফুকাহায়ে কেরাম অনুমতি দিয়েছেন। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত ফল পরিপূর্ণতায় আসার পর গাছে রেখে দেওয়ার শর্তে ফল ক্রয়-বিক্রয় করা যা...

উত্তরঃ- লেনদেনের ক্ষেত্রে ক্রেতা-কিক্রেতার ফায়দা রয়েছে এমন শর্ত গ্রহনযোগ্য নয়। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত ক্রয়-বিক্রয়ে বিক্রেতার ফায়দা রয়েছে; এমন শর্ত বিদ্যমান থাকায় উক্ত ক্রয়-বিক্রয় বৈধ নয়।   -আল হিদায়াহঃ-৩/৫৯, রদ্দুল মুহতা...

উত্তরঃ- আমাদের দেশে প্রচলিত এনজিও ( প্রশিকা, আশা, ব্র‌্যাক, গ্রামীন ব্যাংক ইত্যাদি ) -রা দারিদ্র বিমোচন ও জনসেবার নামে ইসলাম ও মুসলমানদের ঈমান বিনষ্ট করার অবিরাম সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছে। তাই তাদের কোন প্রকারের সমর্থন-সহযোগীতা করা গু...

উত্তরঃ- ইসলামের শত্রুদের কোন ধরণের সহযোগিতা করা থেকে দুরে থাকা শ্রেয়। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত ইসলাম বিদ্ধেষী/বিরোধী চক্রের পন্য ব্যাবহার না করা চাই।   - আল হিদায়াঃ- ৩/৩৭৮, ফাতাওয়ায়ে আলমগীরীঃ-৫/৩৪৬,  জাওয়াহিরুল ফিকহঃ- ৩/১৮...

উত্তর: শরীয়তের দৃষ্টিতে মুনাফার শর্তে ঋণ আদান-প্রদান করা হারাম। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সূরতে যে অতিরিক্ত টাকা পাঠানো হয় তা ঋণ গ্রহিতার টাকা পৌছানোর খরচ হিসাবে পাঠানো হয়। এবং তা বিকাশ কোম্পানী কেটে নিয়ে যায়। আর ঋণদাতা তার মূল টাকাই পেয়ে থাকে। তাই উক...

উত্তর:- শরীয়াতের পরিভাষায় মুদারাবা বলা হয়, এক ব্যক্তির শ্রম এবং অপর ব্যক্তির  মূলধনের মাধ্যমে ব্যবসা পরিচালনা করা। এতে উভয়পক্ষ লাভবান হয়। কিন্তু যদি কেউ এধরণের লেনদেনের মাঝে নির্দিষ্টহারে লভ্যাংশ নির্ধারাণ করে, তাহলে তা বৈধ হবে না। ...

উত্তর :- ঋণের বিপরীতে শর্ত করে অতিরিক্ত দেয়া-নেয়া সুদের অন্তর্ভূক্ত হওয়ায় তার হারাম। আর শর্তমুক্তভাবে হাদিয়া দেয়া-নেয়া বৈধ। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সুরতে লোন দাতাকে প্রদত্ত ডিসকাউন্ট পূর্ব শর্তযুক্ত ও ঋণের সাথে সম্পৃক্ত না হলে বৈধ। অন্যথায় হারাম। &n...

উত্তর:- শরয়ী দৃষ্টিতে পারিশ্রমিক নির্ধারণ থাকা এবং যে জিনিসের পরিশ্রম করা হচ্ছে সেখান থেকেই বিনিময় নির্ধারণ না করা আবশ্যক। সুতরাং আপনাদের মাদরাসার পক্ষ থেকে কমিশনের ভিত্তিতে প্রচলিত কমিশন ভিত্তিক লেনদেন বৈধ নয়। -ফাতওয়ায়ে শামী ৫/৬,হেদায়া ৩/৩০৫,ফ...

উত্তর :- শরয়ী দৃষ্টিতে  বৈধ  এমন যে কোন জিনিসের শরীয়া সম্মত পন্থায় যে কোন  ধর্ম ও মতবাদের লোকদের সাথে লেন-দেন করা যাবে। তবে, সম্ভব হলে ভিন্ন মতালম্বীদের সাথে লেন-দেন করা থেকে বিরত থাবে।   আদ দুররুল মুখতার - ৬/৩৯২; ফাতাওয়া কাজিখান - ২/২০৫; ...

উত্তর:- যৌথ লেনদেনের ক্ষেত্রে শরীকদের বৈধ  ও গ্রহণযোগ্য শর্তানুযায়ী লেনদেন পরিচালনা করার সুযোগ রয়েছে। সুতরাং প্রশ্নোক্ত সুরতে যে ভাই পরিবারের কাজ করে তাকে যদি তাদের পক্ষ হেত এভাবে নিয়োগ দেয়া হয় যে তুমি পরিবার দেখাশোনা করবে। আর আমরা ব্যবসা দেখাশোনা...

উত্তর:- সম্পদ বৈধ-অবৈধের প্রশ্নে ধর্ম একতরফাভাবে বিবেচ্য নয়; বরং আয়ের উৎস বিবেচ্য। যদি কোন মুসলমান অবৈধ পন্থায় অর্জন করে তাহলে তা হারাম। আর যদি কোন বিধর্মী বৈধ পন্থায় কামাই করে তাহলে তা হালাল। আর বিধর্মীর উপঢৌকন গ্রহণ করা জায়েয। সুতরাং প্রশ্নে বর্...