بسم الله الرحمن الرحيم

জামিয়া ইসলামিয়া রওজাতুল উলুম বাউনিয়াবাদ
  • প্রশ্ন: উন্নত জীবন যাপনের আশায় দারুল হরব/মুসলিমদের সাথে যুদ্ধে লিপ্ত এমন কোন রাষ্ট্র/অঞ্চলে মুসলিমদের জন্য বসবাস করার বিধান কি?
  • প্রশ্ন: যুদ্ধের ময়দানে কাফেরদের ঘর বাড়ি ও তাদের উপাসনালয় ধ্বংস করা যাবে কী?
  • প্রশ্ন: শাপলা চত্তরে যারা ইন্তেকাল করেছেন তাদেরকে শহীদ বলা যাবে কী?
  • প্রশ্ন: জিহাদ কখন ফরযে আইন ? কখন ফরযে কিফায়া ?
  • প্রশ্ন: জিহাদের সহিহ সংজ্ঞা কি? এবং তাবলীগে যাওয়া আল্লাহর রাস্তায় জিহাদ বলা কতটুকু সহিহ?
  • প্রশ্ন: কবর খনন করে টাকা নেয়া জায়েয আছে কি না?
  • প্রশ্ন: খাওয়া যায় না এমন প্রাণী শিকার করা জায়েয আছে কী ?
  • প্রশ্ন: বর্তমানে স্কুল-কলেজে চারুকলা পরীক্ষায় বিভিন্ন মানুষ অথবা প্রাণীর ছবি আঁকতে বলা হয়, এমতাবস্থায় উক্ত ছবি আঁকা জায়েয হবে কি না?
  • প্রশ্ন: মুক্তিযোদ্ধা ভাতা এটা একটা সুবিধা, সুতরাং বাংলাদেশের কোন যোদ্ধা যদি মারা যায়, তাহলে কি তা ওয়ারিস সুত্রে তার ছেলে বা নাতি এ সুবিধা ভোগ করতে পারবে?
  • প্রশ্ন: কাফের বাদশাহর পক্ষ থেকে কাযার জিম্মাদারী গ্রহণ করা বৈধ হবে কি না?
  • প্রশ্ন: খালেদ আর বকর দুই ভাই আর যায়েদ হল তাদের মা শরীক ভাই, এখন তাদের মায়ের ১০০ শতাংশ জমি আছে। এ জমি থেকে কি যায়েদ কোন জমি পাবে? পেলে কতটুকু পাবে? উল্লেখ্য কোন বোন এবং অন্য কেউ নেই।
  • প্রশ্ন: হিজড়া সন্তান মিরাস পাবে কি না?
  • প্রশ্ন: বদলী হজকারীকে যদি প্রেরক সুনির্দিষ্টভাবে হজে তামাত্তু করার জন্য পাঠান কিন্তু তিনি হজ্জে ইফরাদ করেন, তাহলে তার হজ আদায় হবে কি না?
  • প্রশ্ন: কোন ব্যক্তির নিকট হজ ফরয হওয়া পরিমাণ সম্পদ রয়েছে কিন্তু তার চাইতে দ্বিগুণ ঋণ রয়েছে, তাহলে তার উপর হজ ফরজ হবে কি না?
  • প্রশ্ন: মৃত ব্যক্তির নামে ওমরা পালন করলে ওমরা কার পক্ষ হতে আদায় হবে?
  • প্রশ্ন: পেনশনের টাকা দিয়ে হজ আদায় করা যাবে কি না?
  • প্রশ্ন: কোন বৃদ্ধলোক (যিনি চলাফরো করতে কষ্ট হয় ) যদি ধনী হয় তাহলে কি তার উপর হজ ফরয হবে?
  • প্রশ্ন: শরয়ী দন্ডবিধি কে বাস্তবায়ন করবে? বিচারক না মুফতি?
  • প্রশ্ন: অনেক মুসল্লী ভাইদেরকে দেখা যায়, জুতা পায়ে রেখে জানাযার নামাজ আদায় করে। জানার বিষয় হলো; এই ভাবে নামাজ আদায় করার হুকুম কি?
  • প্রশ্ন: রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের ভাষা ছিল আরবী, তাই তিনি আরবীতে খুতবা দিতেন,জানার বিষয় হলো, আমাদের মাতৃভাষায় খুতবা দেওয়া জায়েয হবে কি না? আর যদি কেউ দিয়ে ফেলে তাহলে জুমার নামায সহিহ হবে কি না?
  • প্রশ্ন: এক ব্যক্তি জানাযার নামাযে আট তাকবীর বলে শেষ করল, এখন জানার বিষয় হলো; যদি ইমাম সাহেব চার তাকবীরের বেশি তাকবীর বলে তখন মুক্তাদিরা কী করবে? এবং উক্ত নামাযের হুকুম কী?
  • প্রশ্ন: আমরা জানি জুমা বা ঈদের নামাযের খুতবা শুনা ওয়াজিব, কথা বলা হারাম। জানার বিষয় হলো ইমাম সাহেব যদি খুতবাতে কোন ভুল করে ফেলেন, তাহলে উপস্থিত মুসল্লীরা লোকমা দিতে পারবে কি না?
  • প্রশ্ন: অধিকাংশ মসজিদে জুমআর খুতবার পূর্বে বয়ান হয়ে থাকে, জানার বিষয় হলো যে, এই বয়ান জায়েয আছে কি না? উক্ত বয়ান চলাকালীন সময়ে নামাজ পড়া যাবে কি না?
  • প্রশ্ন: কেউ যদি বলে বর্তমানে কোন যুদ্ধ – জিহাদ নেই! অথচ আমরা জানি জিহাদ কিয়ামত পর্যন্ত চলতে থাকবে, এমন ব্যক্তির কি ঈমান ভেঙ্গে যাবে?
  • প্রশ্ন: আমার জানার বিষয় হলো, যে ব্যক্তি নামাজ পড়ে, কোরআন পড়ে, হজ্জ করে আবার হারাম কাজের বৈধতা দেয়, তার ব্যাপারে শরীয়ত কি বলে?
  • প্রশ্ন: শরয়ী দৃষ্টিতে রাশির বিধান কি?
  • ঈমান আকাইদ
  • প্রশ্ন: উন্নত জীবন যাপনের আশায় দারুল হরব/মুসলিমদের সাথে যুদ্ধে লিপ্ত এমন কোন রাষ্ট্র/অঞ্চলে মুসলিমদের জন্য বসবাস করার বিধান কি?
  • প্রশ্ন: উন্নত জীবন যাপনের আশায় দারুল হরব/মুসলিমদের সাথে যুদ্ধে লিপ্ত এমন কোন রাষ্ট্র/অঞ্চলে মুসলিমদের জন্য বসবাস করার বিধান কি?

    উত্তর: শরয়ী দৃষ্টিতে প্রয়োজনে পৃথিবির যেকোন জায়গায় বসবাসের অনুমতি রয়েছে। নিছক উন্নত জীবন যাপনের উদ্দেশ্যে দারুল হরবে বসবাসের চিন্তা করা উচিত না। কেননা বৈশ্যিক প্রেক্ষাপটে দেখা যাচ্ছে অনেক দেশই মুসলমানদের জন্য নিরাপদ নয়। কোন মুসলমান যখন কোন দেশে বসবাসের উদ্দেশ্যে যাবেন তখন ওইদেশের যাবতীয় নিয়মকানুন মেনে চলা আবশ্যক। আইন লঙ্ঘন করার অনুমতি নেই। নিরাপত্তা চুক্তি […]

    প্রশ্ন: উন্নত জীবন যাপনের আশায় দারুল হরব/মুসলিমদের সাথে যুদ্ধে লিপ্ত এমন কোন রাষ্ট্র/অঞ্চলে মুসলিমদের জন্য বসবাস করার বিধান কি?

    উত্তর: শরয়ী দৃষ্টিতে প্রয়োজনে পৃথিবির যেকোন জায়গায় বসবাসের অনুমতি রয়েছে। নিছক উন্নত জীবন যাপনের উদ্দেশ্যে দারুল হরবে বসবাসের চিন্তা করা উচিত না। কেননা বৈশ্যিক প্রেক্ষাপটে দেখা যাচ্ছে অনেক দেশই মুসলমানদের জন্য নিরাপদ নয়। কোন মুসলমান যখন কোন দেশে বসবাসের উদ্দেশ্যে যাবেন তখন ওইদেশের যাবতীয় নিয়মকানুন মেনে চলা আবশ্যক। আইন লঙ্ঘন করার অনুমতি নেই। নিরাপত্তা চুক্তি […]

    An Noor TV

    প্রশ্ন: বর্তমানে স্কুল-কলেজে চারুকলা পরীক্ষায় বিভিন্ন মানুষ অথবা প্রাণীর ছবি আঁকতে বলা হয়, এমতাবস্থায় উক্ত ছবি আঁকা জায়েয হবে কি না?

    উত্তর: কোরআন হাদীসের স্পষ্ট বর্ণনা অনুযায়ী কোন প্রাণীর ছবি অংকন করা বা ভাস্কর্য নির্মাণ ইত্যাদি নাজায়েয ও হারাম।সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সূরতে চারুকলা পরীক্ষায় যে কোন ধরণের প্রাণীর ছবি অংকন করা নাজায়েয ও হারাম।-মুসলিম ২/২০১, রদ্দুল মুহতার ১/৬৪৭, ফাতাওয়ায়ে দারুল উলুম দেওবন্দ ২১/২৯৯, উত্তর প্রদানে-মুফতী মুহা.শামছুদ্দোহা আশরাফী ,প্রিন্সিপাল ও প্রধান মুফতী-রওজাতুল উলুম মাদরাসা মিরপুর,খতীব-সাইন্সল্যাবরটেরী   জামে মসজদি […]

    An Noor TV

    প্রশ্ন: খালেদ আর বকর দুই ভাই আর যায়েদ হল তাদের মা শরীক ভাই, এখন তাদের মায়ের ১০০ শতাংশ জমি আছে। এ জমি থেকে কি যায়েদ কোন জমি পাবে? পেলে কতটুকু পাবে? উল্লেখ্য কোন বোন এবং অন্য কেউ নেই।

    উত্তর: শরয়ী বন্টন নীতি অনুযায়ী মৃত ব্যক্তির ঔরষজাত সন্তান শরয়ী আসাবা তথা নিকটাত্মীয়ের অন্তুর্ভূক্ত এবং এ হিসেবেই তারা সম্পদের মালিক হয়ে থাকেন। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সূরতে যেহেতু যায়েদও মৃত ব্যক্তির আসাবা (নিকট আত্মীয়)। তাই অন্যান্য আসাবার সাথে সেও মিরাস পাবে এবং ১০০ শতাংশের এক তৃতীয়াংশ অর্থাৎ ৩৩.১ শতাংশ পাবে।-আদ্দুররুল মুখতার আলা রদ্দিল মুহতার ১০/৫৫০, ফাতাওয়ায়ে […]

    Madrasha

    প্রশ্ন: পেনশনের টাকা দিয়ে হজ আদায় করা যাবে কি না?

    উত্তর: হজ ফরজ হওয়ার জন্য কোন ব্যক্তি নিজ মালিকানাধীন হালাল সম্পদ দ্বারা নেসাবের মালিক হওয়াই যথেষ্ট। পেনশনের টাকা সংশ্লষ্টি ব্যক্তির মালকিানাধীন সম্পদ হিসেবে বিবেচিত হয় বিধায় অন্যান্য সম্পদের সাথে নেসাবের হিসাব করার ক্ষত্রেে পেনশনের টাকারও হিসাব করা হয়। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সূরতে পেনশনের টাকা দিয়ে হজ করা যাবে। –ফাতাওয়ায়ে শামী ৩/৫২৭, বাদায়েউস সানায়ে ৩/৪৫, ইমদাদুল […]

    প্রশ্ন: কোন বৃদ্ধলোক (যিনি চলাফরো করতে কষ্ট হয় ) যদি ধনী হয় তাহলে কি তার উপর হজ ফরয হবে?

    উত্তর: শরীয়তের মূলনীতি অনুযায়ী হজ ফরয হওয়ার জন্য শর্ত হলো;আর্থিক এবং শারিরিকভাবে হজ পালনে সার্মথবান প্রমাণতি হওয়া। আর্থিকভাবে স্বচ্ছল ব্যক্তি শারীরকিভাবে অক্ষম হলওে তাঁর উপর হজ ফরজ হয়ে যায়। এক্ষত্রেে তিনি অন্য কাউকে দিয়ে বদলী হজ করিয়ে নিবেন। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত বৃদ্ধ লোকরে উপর হজ ফরজ হয়ে গেছে।  বার্ধক্যজনিত  শারীরিক অক্ষমতার কারণে তিনি স্ব-শরীরে হজ […]

    An Noor TV

    প্রশ্ন: শরয়ী দন্ডবিধি কে বাস্তবায়ন করবে? বিচারক না মুফতি?

    উত্তর: শরয়ী দন্ডবিধি মহান আল্লাহ তায়ালার হক। এ হক বাস্তবায়নের জিম্মাদারী রাষ্ট্রীয় দায়ীত্বশীলের। যা তিনি শরীয়া আদালত প্রতিষ্ঠা করে এর জন্য উপযুক্ত নিয়োগ করে বাস্তবায়ন করবেন।সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সূরতে শরয়ী দন্ডবিধি ইসলামী রাষ্ট্রের আমীর বা নির্ধারিত কাযী বাস্তবায়ন করবে। মুফতি সাহেব নয়। তবে তিনি বিচারক/কাযীর পরামর্শক বা উপদেষ্টা হিসেবে থাকবেন। বিভিন্ন বিষয়ে পরামর্শ দিয়ে সহযোগিতা […]

    An Noor TV

    প্রশ্ন: অনেক মুসল্লী ভাইদেরকে দেখা যায়, জুতা পায়ে রেখে জানাযার নামাজ আদায় করে। জানার বিষয় হলো; এই ভাবে নামাজ আদায় করার হুকুম কি?

    উত্তর: শরীয়তের মূলনীতি হলো, নামাজী ব্যক্তির নামাজের স্থান পাক হওয়া আবশ্যক। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সূরতে মুসল্লী যদি জুতা পায়ে রেখে নামাজ পড়ে, তাহলে অবশ্যই জুতার তলাসহ জমীনের ঐ অংশও পাক হতে হবে, যাতে জুতা রাখা হয়েছে। আর যদি জুতা খুলে জুতার উপর পা রেখে নামাজ পড়ে তাহলে শুধু জুতার ঐ অংশ পাক হতে হবে যা […]

    Madrasha
    An Noor TV

    প্রশ্ন: রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের ভাষা ছিল আরবী, তাই তিনি আরবীতে খুতবা দিতেন,জানার বিষয় হলো, আমাদের মাতৃভাষায় খুতবা দেওয়া জায়েয হবে কি না? আর যদি কেউ দিয়ে ফেলে তাহলে জুমার নামায সহিহ হবে কি না?

    উত্তর: শরীয়তের মূলনীতি অনুযায়ী জুমা ও ঈদের খুতবা আরবীতে হওয়াটাই জরুরী, যা উম্মাহর ধারাবাহিক আমল দ্বারা প্রমাণিত। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সূরতে আরবী ভাষা জানা সত্তে¡ও মাতৃভাষায় খুতবা পড়া মাকরূহে তাহরীমী হবে। তবে হ্যাঁ যদি কেউ পড়ে ফেলে তাহলে তার জুমার শর্ত পাওয়া যাওয়ার কারণে কারাহাতের সাথে জুমা সহিহ হয়ে যাবে। তবে বিশুদ্ধ ও ধারাবাহিকভাবে প্রমাণিত […]

    An Noor TV

    প্রশ্ন: এক ব্যক্তি জানাযার নামাযে আট তাকবীর বলে শেষ করল, এখন জানার বিষয় হলো; যদি ইমাম সাহেব চার তাকবীরের বেশি তাকবীর বলে তখন মুক্তাদিরা কী করবে? এবং উক্ত নামাযের হুকুম কী?

    উত্তর: শরীয়তের মূলনীতি হলো, যদি ইমাম সাহেব নামাযের ফরজ ও ওয়াজিব বিধানাবলী আদায় করার পর অতিরিক্ত কোন কাজে লিপ্ত হয়ে যায়, তাহলে মুক্তাদিরা ইমামের অনুসরন না করে ইমামের সালামের অপেক্ষা করবে। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সূরতে যেহেতু জানাযার নামাযের রুকন হলো চার তাকবীর বলা, তাই ইমাম চার তাকবীরের বেশি বলে অতিরিক্ত কাজই করল, অতএব বিশুদ্ধ মতানুযায়ী […]

    An Noor TV

    প্রশ্ন: আমরা জানি জুমা বা ঈদের নামাযের খুতবা শুনা ওয়াজিব, কথা বলা হারাম। জানার বিষয় হলো ইমাম সাহেব যদি খুতবাতে কোন ভুল করে ফেলেন, তাহলে উপস্থিত মুসল্লীরা লোকমা দিতে পারবে কি না?

    উত্তর: শরয়ী নীতিমালা অনুযায়ী খুতবা চলাকালীন সময়ে কথা বলা বা অন্য যে কোন কাজ করা নিষিদ্ধ। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সূরতে খতীব সাহেব কোন ভুল করলেও তাতে লোকমা দেওয়া বা সংশোধন করে দেওয়া দরকার নেই। কেননা খুতবার মাঝে হওয়া তথ্য,তত্ত বা ভাষাগত ভুলের কারণে নামাজ ভঙ্গ হবে না। তবে পরবর্তীতে আদাবের সাথে ইমাম/খতীব সাহেবেকে এব্যাপারে অবগত […]

    খুতবার ভাষা আরবী হওয়াই সুন্নাহ লিখক- ‍সাইফুর রহমান

    খুতবা সংক্রান্ত বিষয় গুলোর মধ্যে যে সমস্ত পয়েন্ট নিয়ে আলোচনা করা হবে তার HIGHLIGHTS দেখুন !!! . . ১// খুতবা শুনা ওয়াজিব হওয়া মর্মে কোন দলিল আছে কি? . ২// স্থানীয় ভাষায় খুৎবা প্রদানঃ একটি দালীলিক পর্যালোচনা ! . ৩// আরবী ছাড়া অন্য ভাষায় জুমআর খুতবা দেয়া বিদআত ! . ৪// জুমআর মূল খুতবার আগে […]

    Madrasha

    কুরবানীর জন্য কাকে নেওয়া হয়েছিল—ইসমাঈল(আ) নাকি ইসহাক(আ) ?

    কুরবানীর জন্য কাকে নেওয়া হয়েছিল—ইসমাঈল(আ) নাকি ইসহাক(আ) ? =========================================== . সম্প্রতি বেশ কিছু ভাই মেসেজে জানালেন কুরবানীর জন্য কাকে নেওয়া হয়েছিল—ইসমাঈল(আ) নাকি ইসহাক(আ) এটা নিয়ে নাকি কনফিউশনের সৃষ্টি করা হচ্ছে।এ নিয়ে নাকি নাস্তিক-মুক্তমনারা জল ঘোলা করছে।তারা নাকি বাইবেল ও কুরআন উভয় গ্রন্থ থেকে প্রমাণ করেছে ইসহাক(আ) ছিলেন কুরবানীর জন্য নির্বাচিত সন্তান! খ্রিষ্টান মিশনারীরা তাদের ধর্ম […]

    মর্টগেজ ভাড়ার হুকুম

    প্রশ্ন: পুরান ঢাকার কিছু এলাকায় বিগত ৩-৪ বছর আগে একটি মর্টগেজ ভাড়াটিয়া ব্যবস্থা চালু হয়েছে এবং ক্রমেই তা দ্রুত বিস্তার ঘটছে। মূলত বাড়িওয়ালাদের অর্থের প্রয়োজন মেটাতেই এই মর্টগেজ ভাড়াটিয়া ব্যবস্থাটি চালু হয়েছে। যার বিবরণ এই যে, বাড়ি বা ফ্ল্যাটের মালিকদের তিন বা পাঁচ লক্ষ টাকা একত্রে প্রদান করে মর্টগেজ ভাড়াটিয়া বাড়ি বা ফ্ল্যাটে উঠে। ব্যবহৃত […]

    An Noor TV

    হাদীস, আসারে সাহাবা ও তাবেয়ী এবং তা‘আমুলে উম্মাহর আলোকে মহিলা-পুরুষের নামাযের পদ্ধতিগত পার্থক্য

    নারী পুরুষ উভয়ই মানুষ। এ হিসেবে উভয়ের মাঝে কোন তারতম্য নেই। নারী পুরুষ একে অপরের সহায়ক ও পরিপূরক। কাউকে বাদ দিয়ে কেউ পরিপূর্ণ হতে পারে না। কিন্তু এই স্বতঃসিদ্ধতা সত্ত্বেও উভয়ের মাঝে রয়েছে গঠনগত অনেক ব্যবধান। ব্যবধানই যদি না থাকতো তাহলে উভয়ের নাম ভিন্ন হতো না। নারীর ঋতুস্রাব হয়; কিন্তু পুরুষের তা হয় না। নারীর […]