Follow Us:
বিশেষ ঘোষণা:-
আসসালামু আলাইকুম ওরাহমাতুল্লাহ, সম্মানিত ভিজিটরগণ, আমাদের ওয়েব সাইটের আপডেটের কাজ চলছে, ভিজিট করতে সাময়ীক অসুবিধা হতে পারে, তাই আমরা আন্তরিকভাবে দুঃখিত।

Category: কসম/শপথ

উত্তর: শরয়ী দৃষ্টিতে মহান আল্লাহ তায়ালার সত্তা ও গুণাবলী ব্যতীত অন্যকিছু দ্বারা কসম করলে কসম হবে না। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সূরতে যেহেতু কুরআনের স্বীয় বানীগুলো মহান আল্লাহর গুণাবলীর অন্তর্ভূক্ত এবং বর্তমানে কুরআনের কসম খাওয়ার প্রচলনও রয়েছে। তাই খাল...

উত্তর: শরয়ী দৃষ্টিতে জানা যায় যে, গুনাহের কাজে মান্নত করার দ্বারা মান্নত সহিহ হয় না। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সূরতে যেহেতু শ্মশান গরু দান করা স্পষ্ট গুনাহের কাজ। তাই তার মান্নত সহিহ হয় নাই। বরং তা কসমে পরিণত হবে। এবং উক্ত কসমের কাফফারা আদায় করতে হবে।...

উত্তর :- কোরান হাতে কসম করা বৈধ। তবে উহা ভঙ্গ করলে কাফফারা আদায় করা জরুরী্।   সুরা মায়েদা - ৮৯; বুখারী - ২/৯৯২; ফাতাওয়া শামি - ৩/৭১২; আল বাহরুর রায়েক - ৪/৪৭৩।...

উত্তর :- ইসলামি শরীয়তে আল্লাহ ব্যতিত অন্য কারো নামে কসম বা মানত করা হারাম। এমন মানত পুরা করাও গুনাহের কাজ। সুতরাং প্রশ্নোক্ত সুরতে খাজা বাবার নামে মানত করা সহীহ হয়নি। তাই এমন মানত পুরা না করলে গুনাহগার হবে না। রবং উক্ত মানত পুরা না করাই বাঞ্ছনীয়...

উত্তর:- ইসলামী শরীয়তে সত্য নিয়ে কসম করা নিষিদ্ধ নয়। কেননা, কোন সত্যকে আরো বেশী শক্ত করার জন্যই কসম করা হয়। সুতরাং প্রশ্নোক্ত সুরতে বক্তা যদি বৈধ কোন বিষয়ে ভবিষ্যতে করা বা না করার কসম করে তাহলে তা কসম হিসেবেই বিবেচিত হবে। এবং যদি এধরনের কসম ভঙ্গ ...

উত্তর:- ইসলামী শরীয়তে আল্লাহর নাম বা তার গুনাবলী ব্যতিত অন্য কোনো বস্তুর সাথে সম্পৃক্ত করা কসমের অন্তর্ভূক্ত নয়। সুতরাং প্রশ্নোক্ত সুরতে ছেলের মাথায় হাত রেখে কসম খাওয়ার দ্বারা কসম সংঘটিত হয় না। এবং কোন কিছু আবশ্যকও হবে না। তবে এ ধরণের কসম করা উচি...

উত্তর-প্রশ্নেবর্নিত মিথ্যা কসম যদিও মারাত্মক কবীরা গুনাহ। কিন্তু এ ধরনের শপথের কারণে বিবাদীর কাফ্ফারা ওয়াজিব হবেনা। তবে তাকে অবশ্যই তাওবা করতে হবে।  - আদ্দুররুল মুখতার ৫/৪৯২,রদ্দুল মুহতার ৫/৪৯৩,ফাতওয়ায়ে হিন্দিয়া ২/৫৮, উ...

উত্তর: কসম তিন প্রকার- ১. গুমুস, ২. লাগব, ৩. মুনআকিদাহ। এগুলোর মাঝে পার্থক্য: গুমুস: বলা হয় যাতে অতীত/বর্তমানে কোন জিনিষ হওয়া বা না হওয়ার ব্যাপারে মিথ্যা শপথ করা এবং তাতে শুধু তাওবা-ইসতেগফার আবশ্যক হবে। লাগব: বলা হয় যাতে অতীত বা বর্তমান ক...

বরাবর, উচ্চতর ইসলামী আইন ও গবেষণা বিভাগ জামিয়া ইসলামিয়া রওজাতুল উলুম মাদ্রাসা মিরপুর ১১-ঢাকা-বাংলাদেশ। বিষয়ঃকসম। জনাব,কোরআন শরিফের কসম খাওয়া বৈধ আছে কি? উক্ত কসম ভঙ্গ করলে কাফফারা আসবে কি? নিবেদক, ...মোঃআনিসুল হক উত্তরঃ ...

উত্তর: কসম সংঘটিত হওয়ার জন্য মুসলিম হওয়া আবশ্যক। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত ব্যক্তি মুসলিম না হওয়ায় তার কসম সংঘটিত হয়নি, এ কারণে উক্ত কসম এর উপর কোন বিধি-বিধান প্রয়োগ হবে না। ...

Copyright 2021 - All Rights Reserved