Category: ঈমান আকাইদ

উত্তর :- শরয়ী নীতিমালা অনুযায়ী সকল প্রকার যাদু-টোনা হারাম। তাই কালো জাদুও হারাম। এবং এর মাধ্যমে জীনদের বশ করা ও তাদের কাছ হতে সহযোগীতা গ্রহণ করাও হারাম, কবিরা গুণাহ।   আল মিনহাজ – ২/২২১; ফাতাওয়া  শামি – ১/৪৪; আল ঈদুল ইসলামি – ১৪/৪৭।...

উত্তর :- দীনের আবশ্যকীয় বিষয়গুলোর যেকোন একটিকে অস্বীকার করলে সে কাফের হয়ে যাবে। আর হাশর তথা পরকাল দীনের আবশ্যকীয় বিষয়গুলোর একটি। তাই হাশরে বিশ্বাস না  রাখলে সে  কাফের হয়ে যাবে।   তাফসিরে কাবীর – ৬/৭৩; রদ্দুল মুহতার – ১/২৭৭; জাওয়াহিরুল ফিকা...

  উত্তর :- কোরান-সুন্নাহর বর্ণনা  মোতাবেক নবী সা. সত্ত্বাগতভাবে মাটির তৈরী। তাই, নবী সা.কে সত্ত্বাগতভাবে মাটির তৈরী হওয়া- অস্বীকার করা প্রকারান্তরে কোরান-হাদিসের বর্ণনাকে অস্বীকার করা। আর পবিত্র কোরানের  কোন আয়াত বা বিধানকে অস্বীকার করলে স...

উত্তর :- কোন মুসলমান ঈমানদার ব্যক্তি  এমন কোন কাজে শরীক হয় যা স্পষ্টত কুফরি। তাহলে তার ঈমান চলে যায়। তাই কোন মুসলমান  বিধর্মীদের ধর্মীয় রীতি-আচার পালনে অংশগ্রহণ করলে তার ঈমান নষ্ট হয়ে যাবে। এবং সে কাফের হয়ে যাবে। তবে, যদি সে কেবল দেখার জন্যই গিয়ে থাক...

উত্তরঃ- কুরআন কারীম আল্লাহর বানী। আল্লাহ ভুলের উর্ধ্বে। এই আকীদা বিশ্বাস রাখা ইমানের অংশ। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত কেউ যদি মনে করে যে কুরআনে ভুল আছে, তাহলে তার ঈমান থাকবে না। ঐ ব্যাক্তির উচিৎ তওবা করে এজাতীয় আকীদা থেকে ফিরে আসা এবং ঈমানকে নবায়ন করা। ...

উত্তরঃ- ইসলাম অত্যন্ত আত্মমর্যাদা সম্পন্ন। ইসলামী শরীয়ত কখনোই তার অনুসারীদেরকে বিধর্মীদের সংস্কৃতি পালনের বা সাদৃশ্যতা অর্জনের অনুমতি দেয় না। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সুরতে হিন্দুদের মন্দির পূজায় যাওয়া মুসলমানের জন্য বৈধ নয়। তবে যদি মন্দিরে গিয়ে পূজা...

উত্তরঃ- হাদীসের ভাষ্য অনুযায়ী আহলে সুন্নাত ওয়াল জামায়াত ব্যাতীত বাকিরা জাহান্নামী। যারা পরিপূর্ণ কুফুরীর দরজায় পৌঁছবে, তারা চিরস্থায়ী জাহান্নামী। আর বাকিরা নিজ কর্ম অনুযায়ী সাজা ভোগ পরবর্তিতে জান্নাতে যাবে। সুতরাং প্রশ্নেবর্ণিত আহলে সুন্নত ওয়াল জা...

উত্তরঃ- রাসূল সাঃ এর ছায়া না থাকার বিষয়টি জাল ও জয়ীফ রেওয়ায়েতে বর্ণিত হয়েছে। অথচ তার বিপরিতে সহীহ বর্ণনার দ্বারা রাসূল সাঃ এর ছায়া থাকার বিষয়টি প্রমাণিত। সুতরাং “রাসূল সাঃ এর দেহ মোবারকের ছায় পড়তো না” কথাটি সহীহ নয়।   -হাদিউল আরওয়াহঃ-২২...

উত্তরঃ- তাকদীর বা লওহে মাহফুজে বান্দার ভবিষ্যৎ কর্ম লিপিবদ্ধ থাকার অর্থ হলো বান্দার ভবিষ্যৎ সম্পর্কে আল্লাহ তায়ালার এলেমের বহিঃপ্রকাশ। এমনটি নয় যে ‍লিখা থাকার কারণে বান্দা উক্ত কাজ করতে বাধ্য। বরং সে ‍তার পূর্ণ স্বাধীনতা অনুযায়ী তার কর্ম সম্পাদন করবে...

উত্তরঃ- “চোখ লাগা” তথা  বদনজর হাদীসে নববী দ্বারা প্রমাণীত। সুতরাং এটা বিশ্বাস করলে কোন সমস্যা নাই।   - সহীহুল বুখারীঃ- ২/৮৫৪, সুনানুত তিরমিজিঃ- ২/২৬, হাশিয়াতুস সিন্দী আলা হামিশি সহীহিল বুখারীঃ- ২/৮৫৪,  ...

উত্তরঃ- আল্লাহ তায়ালা স্থান, কাল ও পাত্র হতে পবিত্র। আল্লাহ তায়ালা কোনো বিশেষ স্থান বা সর্বত্র বিরাজমান থাকার আকীদা সহীহ নয়। কোরআন-হাদীসে যে সকল স্থানে আল্লাহ তায়ালা কোনো স্থান, কাল ও পাত্রে বিদ্যমান থাকার কথা বলা হয়েছে, সেখানে তার অর্থ হলো আল...

উত্তরঃ- আহলে সুন্নাত ওয়াল জামায়াতের আকীদা অনুযায়ী নবীগন ছাড়া আর কেউ মা’সুম নয়। আমাদের নবী সাঃ এর মত আরো দশজন নিঃষ্পাপ ওলী থাকার আকীদা গোমরাহী। যিনি এমন আকীদা পোষণ করেন তিনি পথভ্রষ্ঠ ও গোমরাহ।   -শরহু ফিকহিল আকবারঃ- ৩৪৯, আত তা’রীফাতঃ-...

উত্তরঃ- ইসলামের অস্বিকারকারী কাফের। সুতরাং বর্তমান যমানায় কেউ যদি ইসলামকে অস্বিকার করে তাহলে তাকে কাফের বলা হবে।   - ফাতাওয়া তাতারখানিয়াঃ- ২০/২৮২, তাফসীরে বায়যাবীঃ-২৩,আপকে মাসায়েল আওর উনকা হলঃ-২/৩৬,...

উত্তরঃ- কোরআন ও হাদিসের বর্ণনা অনুযায়ী জানা যায় যে হেদায়েত একমাত্র আল্লাহর হাতে। আল্লাহ তায়ালা যাকে চান হেদায়াত দেন, যাকে চান পথভ্রষ্ঠ করেন। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত কোন ব্যাক্তি যদি বলে আল্লাহ তায়ালা হেদায়াতের মালিক নন, তাহলে সে ইসলাম ...

উত্তরঃ- শরয়ী দৃষ্টিতে আল্লাহ তায়ালার প্রতি কোরআন বিরোধী আক্বীদা পোষণ কারীর ঈমান থাকেনা। সুতরাং বর্ণিত সুরতে আল্লাহ তায়ালা ঝিমান এবং তন্দ্রা যান ইত্যাদী কােরআন বিরোধী আক্বীদা পোষণকারী ঈমানহারা হয়ে যাবে।   - আল কুরআন; সুর...