Category: আল-কুরআন

উত্তর: প্রশ্নোক্ত সূরতে আপনার রোযাটি মূলত নফল ছিলো। তাই সে রোযা ভাঙার কারণে আপনার উপর সেদিনের রোযার কাযা ওয়াজিব হয়নি। তবে সে রোযাটি কাযা করা উত্তম।   কিতাবুল আছল- ২/১৬৩, মাবসূত সারাখসী- ৩/৮১, বাদায়েউস সানায়ে- ২/১০৪)।...

উত্তর : মোহরানার নির্ধারিত টাকায় কোনো পরিবর্তন হবে না। বিয়ের সময় যে অংক নির্ধারণ হয়েছিলো তাই থাকবে। সুতরাং পনেরো বছর আগে আপনার বোনকে বিবাহ দেয়ার সময় যে তিন লক্ষ টাকা নির্ধারণ করেছিলেন এখনো সেই তিন লক্ষ টাকাই মোহর বাবদ অবশিষ্ট আছে। এতে বর্তমান সময়ের ম...

প্রশ্ন : শরীয়াতের দৃষ্টিতে কুকুর লালন-পালন করার বিধান কী? দলীল প্রমাণসহ জানালে ভালো হয়। উত্তর : বিশেষ প্রয়োজন ব্যতীত কুকুর পালন করা শরীয়াত অনুমোদিত নয়। হাদীসে কুকুর পালনে নিষেধাজ্ঞা বর্ণিত হয়েছে। এক হাদীসে বর্ণিত হয়েছে, যে ঘরে কুকুর থাকে সেখানে ফে...

উত্তর : যদি কোনো পিতা তার জীবদ্দশায় ওয়ারিশদের মাঝে হেবা সূত্রে সম্পদ বন্টন করতে চায় তার জন্য সর্বোত্তম পন্থা হচ্ছে, সমূদয় সম্পদ সকল ওয়ারিশদের মাঝে সমানভাবে বন্টন করা। তবে শরয়ী কোনো কারণে তাদের মাঝে কম বেশি করার অধিকার তার আছে। শরয়ী কোনো উযর ব্যতীত স...

বিগত বছরের কুরবানী অনাদায়ী থাকলে অনেকেই পরবর্তী বছর কুরবানী দিয়ে থাকে। অথচ এভাবে বিগত বছরের কুরবানীর কাযা আদায় হয় না। এক্ষেত্রে নিয়ম হল প্রতি বছরের কুরবানীর জন্য অন্তত কুরবানীর উপযুক্ত একটি ছাগলের মূল্য সদকা করা। -খুলাসাতুল ফাতাওয়া। ৪/৩১১; মাবস...

কুরবানীর পর, ঢাকাসহ পুরাে দেশে বাড়ি বাড়ি গিয়ে কুরবানীর পশুর চর্বি কেনাবেচা হয়। অথচ কুরবানীর গােস্ত, চর্বি ইত্যাদি বিক্রি নাজায়েয। কেউ বিক্রি করলে পুরাে টাকা মিসকীনদেরকে সদকা করে দেওয়া জরুরি। -ইলাউস সুনান ১৭/২৫৯; বাদায়েউস সানায়ে ৪/২২৫; কাযী খা...

অনেকে মনে করে , কুরবানীর গােস্ত হিন্দু বা বিধর্মীদেরকে দেওয়া জায়েয নেই। এধারণা ভুল। বিধর্মীদেরকেও কুরবানীর গােস্ত দান করা জায়েয। ইলাউস্ সুনান ১৭/২৮৩; আলমগীরী ৫/৩০০ ....

অনেকে কুরবানীর গােস্ত তিনভাগ করে একভাগ নিজে রেখে, একভাগ আত্নীয়-স্বজন, পাড়া-প্রতিবেশী ও একভাগ ফকীর মিসকীনকে দেওয়া জরুরি মনে করেন। অথচ এভাবে বণ্টন করা জরুরি নয়, তবে উত্তম। কেউ এতে ত্রুটি করলে কোন গুনাহ হবে না এবং কুরবানীরও কোন ক্ষতি হবে না। কেউ কেউ...

উত্তর :- মহিলারা এই তাকবীরে তাশরীকটি নিচু স্বরে আদায় করবে। উচ্চ স্বরে নয়।   -রদ্দুল মুহতার ২/১৭৯; হাশিয়া তাহতাবী ১/৩৫৭; হিন্দিয়া ১/১৫২...

উত্তর :- ঈদুল আযহায় ঈদগাহে পৌঁছার আগ পর্যন্ত পথে পথে উচ্চস্বরে তাকবীর বলে বলে যাবে।   -মুসান্নাফ ইবনে আবী শায়বা ৪/১৯২-১৯৪; দারাকুতনী ২/৪৪-৪৫; ইলাউস সুনান ৮/১১৪-১১৯; বাদায়েউস সানায়ে ১/৬২৫; আলমুহীতুল বুরহানী ২/৫১৩; ফাতাওয়া খানিয়া ১/১৮৩ ....

উত্তর :- আইয়ামে তাশরীকের কোনো নামায কাযা হয়ে গেলে ঐ দিনগুলোর মধ্যে তার কাযা আদায় করলে তাকবীর বলা ওয়াজিব। কিন্তু এই কাযা পরবর্তী অন্য সময় আদায় করলে বা আইয়ামে তাশরীকের আগের কাযা নামায ঐ দিনগুলোতে আদায় করলে তাকবীর বলা ওয়াজিব নয়।   -বাদায়েউস স...

উত্তর :- উচ্চস্বরে একবারই তাকবীর বলা ওয়াজিব।   -ফাতাওয়া হিন্দিয়া ১/১৫২; রদ্দুর মুহতার ২/১৭৮...

উত্তর :- সুন্নত, নফল, বিতর নামাযের পর তাকবীর ওয়াজিব নয়।   -বাদায়েউস সানায়ে ১/৪৬২; মাবসূত সারাখসী ২/৪৪; ফাতাওয়া হিন্দিয়া ১/১৫২...

উত্তর: বিশুদ্ধ মত অনুযায়ী অধীনস্তদের সদকায়ে ফিতর আদায়ের ক্ষেত্রেও তাদের পক্ষ থেকে যে আদায় করবে তার অবস্থানস্থল ধর্তব্য হবে। সুতরাং যারা প্রবাসে থাকেন তাদের নাবালেগ সন্তান দেশে থাকলেও প্রবাসের মূল্য হিসাবে সদকায়ে ফিতর আদায় করবেন। -বাদায়েউস সানায়...

উত্তর: হাঁ, স্ত্রীর পক্ষ থেকে স্বামীর সদাকাতুল ফিতর আদায় করে দেওয়ার যেহেতু প্রচলন আছে তাই স্বামী স্ত্রীর সদাকাতুল ফিতর আদায় করে দিলে আদায় হয়ে যাবে। এক্ষেত্রে তার অনুমতি নেওয়া জরুরি নয়। এবং এ কারণে স্বামী সওয়াবের অধিকারী হবে। নাফে রাহ. বলেন...