Category: আজান/ইক্বামাত

উত্তর :- দাড়ি মুণ্ডানো ও এক মুষ্টির কম কাটা দোনোটাই কবিরা গুণাহ। আর কবিরা গুণাহ কারীকে শরীয়তে ফাসেক বলা হয়। আর ইসলামী শরীয়তে ফাসেক ব্যক্তির আযান দেয়া মাকরূহ।   রদ্দুল মুহতার - ১/৫৫৯; মারাকিল ফালাহ - পৃ. ২০০; হাশিয়াতুত তাহতাভী - পৃ. ১৯৯;...

উত্তর :- ইসলামি শরীয়তে আযান দেয়ার জন্য সময় ও স্থান নির্দিষ্ট করে দিয়েছে। এতদভিন্ন অন্য কোথাও আযান দেয়া যাবে না। সুতরাং মাইয়েতকে দাফনের পর কবরের সামনে উচ্চস্বরে আযান দেয়া যেহেতু শরীয়ত কর্তৃক অনুমোদিত স্থান বা সময় না। বিধায় এরকম করা জায়েয নেই। &n...

উত্তর :- কোন কাজ শরীয়া সম্মত বা আমল যোগ্য হওয়ার জন্য দলিল চতুষ্টয় দ্বারা প্রমাণিত হওয়া জরুরী। যদি দলিল চতুষ্টয় দ্বারা প্রমাণিত না হয় এবং উত্তম তিন যুগের কোন যুগে এর ভিত্তি না থাকে তাহলে তা আমল হিসেবে গ্রহণ করে সওয়াবের আশা করা সুস্পষ্ট বিদআত। বাহ্যিকভ...

উত্তর:- রাসুল সা.এর হাদিস ও সালফে সালেহীনদের আমল দ্বারা প্রমাণিত হয় যে,জুমার ২য় আজান ইমাম সাহেবের দাড়িয়ে দেয়াই সু্ন্নাত।  সুতরাং ডানে,বামে বা অন্য কোথাও দাড়িয়ে আজান দেয়া সুন্নাহ সম্মত নয়। তবে ইমাম বরাবর পিছনের কাতার থেকে দ...

উত্তর:-আজানের সময় কানে আঙ্গুল দেওয়া সুন্নাত। সুন্নাত ছুটে গেলে কোন বিধান বাতিল হয়ে যায়না।  সুতরাং প্রশ্নেবর্নিত ব্যক্তির আজান দেয়ার পদ্ধতিটি সুন্নাহসম্মত না হলেও আজান শুদ্ধ হয়ে যাবে।  - সুনানু ইবনি মাজাহ পৃ-৫২ব...