بسم الله الرحمن الرحيم

জামিয়া ইসলামিয়া রওজাতুল উলুম বাউনিয়াবাদ
  • প্রশ্ন: উন্নত জীবন যাপনের আশায় দারুল হরব/মুসলিমদের সাথে যুদ্ধে লিপ্ত এমন কোন রাষ্ট্র/অঞ্চলে মুসলিমদের জন্য বসবাস করার বিধান কি?
  • প্রশ্ন: যুদ্ধের ময়দানে কাফেরদের ঘর বাড়ি ও তাদের উপাসনালয় ধ্বংস করা যাবে কী?
  • প্রশ্ন: শাপলা চত্তরে যারা ইন্তেকাল করেছেন তাদেরকে শহীদ বলা যাবে কী?
  • প্রশ্ন: জিহাদ কখন ফরযে আইন ? কখন ফরযে কিফায়া ?
  • প্রশ্ন: জিহাদের সহিহ সংজ্ঞা কি? এবং তাবলীগে যাওয়া আল্লাহর রাস্তায় জিহাদ বলা কতটুকু সহিহ?
  • প্রশ্ন: কবর খনন করে টাকা নেয়া জায়েয আছে কি না?
  • প্রশ্ন: খাওয়া যায় না এমন প্রাণী শিকার করা জায়েয আছে কী ?
  • প্রশ্ন: বর্তমানে স্কুল-কলেজে চারুকলা পরীক্ষায় বিভিন্ন মানুষ অথবা প্রাণীর ছবি আঁকতে বলা হয়, এমতাবস্থায় উক্ত ছবি আঁকা জায়েয হবে কি না?
  • প্রশ্ন: মুক্তিযোদ্ধা ভাতা এটা একটা সুবিধা, সুতরাং বাংলাদেশের কোন যোদ্ধা যদি মারা যায়, তাহলে কি তা ওয়ারিস সুত্রে তার ছেলে বা নাতি এ সুবিধা ভোগ করতে পারবে?
  • প্রশ্ন: কাফের বাদশাহর পক্ষ থেকে কাযার জিম্মাদারী গ্রহণ করা বৈধ হবে কি না?
  • প্রশ্ন: খালেদ আর বকর দুই ভাই আর যায়েদ হল তাদের মা শরীক ভাই, এখন তাদের মায়ের ১০০ শতাংশ জমি আছে। এ জমি থেকে কি যায়েদ কোন জমি পাবে? পেলে কতটুকু পাবে? উল্লেখ্য কোন বোন এবং অন্য কেউ নেই।
  • প্রশ্ন: হিজড়া সন্তান মিরাস পাবে কি না?
  • প্রশ্ন: বদলী হজকারীকে যদি প্রেরক সুনির্দিষ্টভাবে হজে তামাত্তু করার জন্য পাঠান কিন্তু তিনি হজ্জে ইফরাদ করেন, তাহলে তার হজ আদায় হবে কি না?
  • প্রশ্ন: কোন ব্যক্তির নিকট হজ ফরয হওয়া পরিমাণ সম্পদ রয়েছে কিন্তু তার চাইতে দ্বিগুণ ঋণ রয়েছে, তাহলে তার উপর হজ ফরজ হবে কি না?
  • প্রশ্ন: মৃত ব্যক্তির নামে ওমরা পালন করলে ওমরা কার পক্ষ হতে আদায় হবে?
  • প্রশ্ন: পেনশনের টাকা দিয়ে হজ আদায় করা যাবে কি না?
  • প্রশ্ন: কোন বৃদ্ধলোক (যিনি চলাফরো করতে কষ্ট হয় ) যদি ধনী হয় তাহলে কি তার উপর হজ ফরয হবে?
  • প্রশ্ন: শরয়ী দন্ডবিধি কে বাস্তবায়ন করবে? বিচারক না মুফতি?
  • প্রশ্ন: অনেক মুসল্লী ভাইদেরকে দেখা যায়, জুতা পায়ে রেখে জানাযার নামাজ আদায় করে। জানার বিষয় হলো; এই ভাবে নামাজ আদায় করার হুকুম কি?
  • প্রশ্ন: রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের ভাষা ছিল আরবী, তাই তিনি আরবীতে খুতবা দিতেন,জানার বিষয় হলো, আমাদের মাতৃভাষায় খুতবা দেওয়া জায়েয হবে কি না? আর যদি কেউ দিয়ে ফেলে তাহলে জুমার নামায সহিহ হবে কি না?
  • প্রশ্ন: এক ব্যক্তি জানাযার নামাযে আট তাকবীর বলে শেষ করল, এখন জানার বিষয় হলো; যদি ইমাম সাহেব চার তাকবীরের বেশি তাকবীর বলে তখন মুক্তাদিরা কী করবে? এবং উক্ত নামাযের হুকুম কী?
  • প্রশ্ন: আমরা জানি জুমা বা ঈদের নামাযের খুতবা শুনা ওয়াজিব, কথা বলা হারাম। জানার বিষয় হলো ইমাম সাহেব যদি খুতবাতে কোন ভুল করে ফেলেন, তাহলে উপস্থিত মুসল্লীরা লোকমা দিতে পারবে কি না?
  • প্রশ্ন: অধিকাংশ মসজিদে জুমআর খুতবার পূর্বে বয়ান হয়ে থাকে, জানার বিষয় হলো যে, এই বয়ান জায়েয আছে কি না? উক্ত বয়ান চলাকালীন সময়ে নামাজ পড়া যাবে কি না?
  • প্রশ্ন: কেউ যদি বলে বর্তমানে কোন যুদ্ধ – জিহাদ নেই! অথচ আমরা জানি জিহাদ কিয়ামত পর্যন্ত চলতে থাকবে, এমন ব্যক্তির কি ঈমান ভেঙ্গে যাবে?
  • প্রশ্ন: আমার জানার বিষয় হলো, যে ব্যক্তি নামাজ পড়ে, কোরআন পড়ে, হজ্জ করে আবার হারাম কাজের বৈধতা দেয়, তার ব্যাপারে শরীয়ত কি বলে?
  • প্রশ্ন: শরয়ী দৃষ্টিতে রাশির বিধান কি?
  • ঈমান আকাইদ
  • প্রশ্ন: উন্নত জীবন যাপনের আশায় দারুল হরব/মুসলিমদের সাথে যুদ্ধে লিপ্ত এমন কোন রাষ্ট্র/অঞ্চলে মুসলিমদের জন্য বসবাস করার বিধান কি?
  • প্রশ্ন: উন্নত জীবন যাপনের আশায় দারুল হরব/মুসলিমদের সাথে যুদ্ধে লিপ্ত এমন কোন রাষ্ট্র/অঞ্চলে মুসলিমদের জন্য বসবাস করার বিধান কি?

    উত্তর: শরয়ী দৃষ্টিতে প্রয়োজনে পৃথিবির যেকোন জায়গায় বসবাসের অনুমতি রয়েছে। নিছক উন্নত জীবন যাপনের উদ্দেশ্যে দারুল হরবে বসবাসের চিন্তা করা উচিত না। কেননা বৈশ্যিক প্রেক্ষাপটে দেখা যাচ্ছে অনেক দেশই মুসলমানদের জন্য নিরাপদ নয়। কোন মুসলমান যখন কোন দেশে বসবাসের উদ্দেশ্যে যাবেন তখন ওইদেশের যাবতীয় নিয়মকানুন মেনে চলা আবশ্যক। আইন লঙ্ঘন করার অনুমতি নেই। নিরাপত্তা চুক্তি […]

    প্রশ্ন: যুদ্ধের ময়দানে কাফেরদের ঘর বাড়ি ও তাদের উপাসনালয় ধ্বংস করা যাবে কী?

    উত্তর: শরয়ী দৃষ্টিতে জিহাদ চলাকালে সরাসরি যুদ্ধে লিপ্ত বা যে কোনভাবে সম্পৃক্ত ব্যক্তিদেরকেই কেবল হত্যার অনুমতি দেয়। এতদভিন্ন কাফের মহিলা, শিশু, বৃদ্ধ ও পাগলকে হত্যার অনুমতি নেই। অনুরুপভাবে তাদের উপাসনালয় এবং উপাসনালয়ের রক্ষণাবেক্ষণকারীসহ যে সমস্ত লোক যুদ্ধে কোন ধরণের সহযোগীতা করে না তাদেরকে হত্যা করার অনুমতি নেই। তবে স্থান, কাল, পাত্র ভেদে মুসলিম সেনাপতি প্রয়োজনীয় […]

    প্রশ্ন: শাপলা চত্তরে যারা ইন্তেকাল করেছেন তাদেরকে শহীদ বলা যাবে কী?

    উত্তর: শরয়ী দৃষ্টিতে শহীদ বলা হয় যাকে কোন মুশরেক, হারবী, রাষ্ট্রদ্রোহী বা ডাকাত হত্যা করেছে অথবা যখমসহ জিহাদের ময়দানে মৃত পাওয়া গেছে অথবা কোন মুসলিম অন্যায়ভাবে হত্যা করেছে।সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সূরতে শাপলা চত্ত¡রে যাদেরকে অন্যায় ভাবে হত্যা করা হয়েছে, তারা সকলেই শরয়ী শহীদের অন্তর্ভূক্ত।-হিদায়া ১/১৮৩, ফাতাওয়ায়ে হিন্দিয়্যাহ ১/২২৯, আপকে মাসায়েল আওর উনকা হল ৭/৫৪১ -উত্তর […]

    প্রশ্ন: জিহাদ কখন ফরযে আইন ? কখন ফরযে কিফায়া ?

    উত্তর: শরয়ী দৃষ্টিতে জিহাদ ফরযে আইন হওয়ার জন্য শর্ত হলো আমীরুল মুজাহিদীন কর্তৃক ‘নফীরে আম’ তথা ব্যাপক ভাবে জিহাদের হুকুম দেয়া।সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সূরতে আমীরুল মুজাহিদীন ‘নফীরে আমে’র ঘোষণা করলে জিহাদ ফরযে আইন হবে। অন্যথায় জিহাদ ফরযে কিফায়া থাকবে।-আদ্দুররুল মুখতার আলা রদ্দিল মুহতার ৬/১৯৫, আলফিকহুল ইসলামি ওয়াআদিল্লাতুহু ৩/৩৬৮, বাহরুর রায়েক ৫/১১৯, আপকে মাসায়েল আওর উনকা […]

    Madrasha

    প্রশ্ন: জিহাদের সহিহ সংজ্ঞা কি? এবং তাবলীগে যাওয়া আল্লাহর রাস্তায় জিহাদ বলা কতটুকু সহিহ?

    উত্তর: আভিধানিক অথে জিহাদ হয় দ্বীন প্রতিষ্ঠার জন্য কাফেরদের সাথে শ্রম দিয়ে,সম্পদ দিয়ে বা কথা দিয়ে প্রচেষ্টা চালানোকে। স্বীয় প্রবৃত্তি, শয়তান ও গুনাহগারদের বিরোধিতা করাও জিহাদের অন্তর্ভুক্ত। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সূরতে তাবলীগে যাওয়াও আভিধানিক/রুপক অর্থে এক ধরণের জিহাদ। তবে একে শরয়ী জিহাদ তথা কিতাল ফি সাবিলিল্লাহের স্থলাভিষিক্ত বলা যাবে না। শরয়ী জিহাদ হল আল্লাহর রাস্তায় […]

    প্রশ্ন: কবর খনন করে টাকা নেয়া জায়েয আছে কি না?

    উত্তর: শরয়ী দৃষ্টিতে ইবাদতের বিনিময়ে সাধারণত পারিশ্রমিক নেয়া বৈধ নয়। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সূরতে যেহেতু মায়্যিতের জন্য কবর খনন করা ফরযে কিফায়া যা ইবাদতের অন্তর্ভূক্ত। তাই কবর খনন করে টাকা নেয়া জায়েয হবে না। তবে যদি উক্ত এলাকায় একাধিক কবর খননকারী থাকে তাহলে পারিশ্রমিক নেয়া বৈধ হবে। অথবা যদি কেউ এটাকেই স্বীয় পেশা হিসাবে গ্রহণ […]

    প্রশ্ন: খাওয়া যায় না এমন প্রাণী শিকার করা জায়েয আছে কী ?

    উত্তর: শরয়ী দৃষ্টিতে মানুষের কল্যাণে আসে এমন প্রাণী শিকার করা বৈধ। বিনা প্রয়োজনে বা কোন কাজে আসেনা এমন প্রাণী শিকার করা ঠিক না।সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সূরতে খাওয়া যায় না এমন প্রাণী যদি কোন প্রকার উপকারে আসে তাহলে শিকার করা জায়েয আছে। তবে ঠিক না।-ফাতাওয়ায়ে কাজী খান ৩/২৫৩, ফাতাওয়ায়ে সিরাজিয়্যাহ ৩৭৩, ফাতাওয়ায়ে মাহমুদিয়্যাহ ১৭ উত্তর প্রদানে-মুফতী […]

    An Noor TV

    প্রশ্ন: বর্তমানে স্কুল-কলেজে চারুকলা পরীক্ষায় বিভিন্ন মানুষ অথবা প্রাণীর ছবি আঁকতে বলা হয়, এমতাবস্থায় উক্ত ছবি আঁকা জায়েয হবে কি না?

    উত্তর: কোরআন হাদীসের স্পষ্ট বর্ণনা অনুযায়ী কোন প্রাণীর ছবি অংকন করা বা ভাস্কর্য নির্মাণ ইত্যাদি নাজায়েয ও হারাম।সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সূরতে চারুকলা পরীক্ষায় যে কোন ধরণের প্রাণীর ছবি অংকন করা নাজায়েয ও হারাম।-মুসলিম ২/২০১, রদ্দুল মুহতার ১/৬৪৭, ফাতাওয়ায়ে দারুল উলুম দেওবন্দ ২১/২৯৯, উত্তর প্রদানে-মুফতী মুহা.শামছুদ্দোহা আশরাফী ,প্রিন্সিপাল ও প্রধান মুফতী-রওজাতুল উলুম মাদরাসা মিরপুর,খতীব-সাইন্সল্যাবরটেরী   জামে মসজদি […]

    Madrasha
    An Noor TV

    প্রশ্ন: মুক্তিযোদ্ধা ভাতা এটা একটা সুবিধা, সুতরাং বাংলাদেশের কোন যোদ্ধা যদি মারা যায়, তাহলে কি তা ওয়ারিস সুত্রে তার ছেলে বা নাতি এ সুবিধা ভোগ করতে পারবে?

    উত্তর: শরয়ী দৃষ্টিতে মৃত ব্যক্তির মালিকানাধীন ত্যাজ্য সম্পত্তি থেকে ওয়ারিসগণ মিরাস পাবে। সম্পদ নয় এমন কোন বস্তু মীরাস বন্টনের সময় ধর্তব্য হয়না। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সূরতে যেহেতু মুক্তিযোদ্ধা ভাতার সুবিধা মৃত ব্যক্তির মালিকানাধীন সম্পত্তি নয়। তাই উক্ত সুবিধা তার ওয়ারিসগণ মিরাস হিসাবে পাবে না। তবে রাষ্ট্রীয়ভাবে সম্মানপূর্বক মৃত ব্যক্তির উত্তরসূরিকে দেয়ার নিয়ম থাকলে সেটা তারা […]

    An Noor TV

    প্রশ্ন: কাফের বাদশাহর পক্ষ থেকে কাযার জিম্মাদারী গ্রহণ করা বৈধ হবে কি না?

    উত্তর: রাষ্ট্রের যে কোন বৈধ কাজে চাকুরিতে অংশগ্রহণের বৈধতা রয়েছে। বিচারক হিসাবে দায়িত্ব পালন বৈধ একটি বৈধ কাজ। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সূরতে কাফের বাদশা যদি ন্যায় বিচার থেকে বাধা না দেয় তাহলে তার পক্ষ থেকে বিচারকের জিম্মাদারী নেয়া জায়েয হবে। তবে যদি অন্যায় রায় দিতে বাধ্য হওয়ার আশংকা থাকে তাহলে এমন আসনে অধিষ্ঠিত না হওয়াই […]

    An Noor TV

    প্রশ্ন: খালেদ আর বকর দুই ভাই আর যায়েদ হল তাদের মা শরীক ভাই, এখন তাদের মায়ের ১০০ শতাংশ জমি আছে। এ জমি থেকে কি যায়েদ কোন জমি পাবে? পেলে কতটুকু পাবে? উল্লেখ্য কোন বোন এবং অন্য কেউ নেই।

    উত্তর: শরয়ী বন্টন নীতি অনুযায়ী মৃত ব্যক্তির ঔরষজাত সন্তান শরয়ী আসাবা তথা নিকটাত্মীয়ের অন্তর্ভূক্ত এবং এ হিসেবেই তারা সম্পদের মালিক হয়ে থাকেন। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সূরতে যেহেতু যায়েদও মৃত ব্যক্তির আসাবা (নিকট আত্মীয়)। তাই অন্যান্য আসাবার সাথে সেও মিরাস পাবে এবং ১০০ শতাংশের এক তৃতীয়াংশ অর্থাৎ ৩৩.১ শতাংশ পাবে।-আদ্দুররুল মুখতার আলা রদ্দিল মুহতার ১০/৫৫০, ফাতাওয়ায়ে […]

    An Noor TV

    প্রশ্ন: হিজড়া সন্তান মিরাস পাবে কি না?

    উত্তর: শরয়ী বন্টন নীতি অনুযায়ী মৃত ব্যক্তির ত্যাজ্য সম্পত্তি থেকে তার ওয়ারিশগণ মিরাস প্রাপ্ত হবেন।সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সূরতে হিজড়াও যেহেতু তার সন্তান। তাই সেও যথারীতি মিরাস প্রাপ্ত হবে।-ফাতাওয়ায়ে হিন্দিয়্যাহ ৬/৪৪৯, আলফিকহুল ইসলামি ওয়াআদিল্লাতুহু ১০/১৬, বাহরুর রায়েক ৯/৩৪০ উত্তর প্রদানে-মুফতী মুহা.শামছুদ্দোহা আশরাফী ,প্রিন্সিপাল ও প্রধান মুফতী-রওজাতুল উলুম মাদরাসা মিরপুর,খতীব-সাইন্সল্যাবরটেরী  কেন্দ্রীয় জামে মসজদি ধানমন্ডি ঢাকা।

    Madrasha
    An Noor TV

    প্রশ্ন: বদলী হজকারীকে যদি প্রেরক সুনির্দিষ্টভাবে হজে তামাত্তু করার জন্য পাঠান কিন্তু তিনি হজ্জে ইফরাদ করেন, তাহলে তার হজ আদায় হবে কি না?

    উত্তর: শরয়ী দৃষ্টিতে বদলী হজ আদায়কারী অবশ্যই তার মুআক্কেলের পুরাপুরি আনুগত্য করা জরুরী। শরীয়াহ বিধিবদ্ধ কাজে তাঁর বিরোধীতা করা উচিৎ নয়।সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সূরতে বদলী হজ আদায়করীর জন্য তার মুয়াক্কেলের আদেশ অনুযায়ী হজ্জে তামাত্তু করাটাই আবশ্যক ছিল। বিপরীতে হজ্জে ইফরাদ করাটা উচিৎ হয়নি। তবে যেহেতু করেই ফেলেছে তাই গ্রহণযোগ্য মতানুযায়ী মুয়াক্কেলের হজ আদায় হয়ে যাবে।ফাতাওয়ায়ে […]

    প্রশ্ন: কোন ব্যক্তির নিকট হজ ফরয হওয়া পরিমাণ সম্পদ রয়েছে কিন্তু তার চাইতে দ্বিগুণ ঋণ রয়েছে, তাহলে তার উপর হজ ফরজ হবে কি না?

    উত্তর: শরিয়তের নিয়ম হল নিজের ব্যক্তিগত ও পরবিাররে একান্ত প্রয়োজন পূরণের পর অবশিষ্ট সম্পদ হজের নেসাব পরিমাণ হলে হজ ফরয হয়। ঋণ ব্যক্তিগত প্রয়োজনের অন্তর্ভুক্ত। যা বাদ দিয়ে নেসাবের হিসাব করতে হবে। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত ব্যক্তির যেহেতু ঋণ রয়েছে এবং তা তাঁর মালিকানায় থাকা সম্পদের চেয়ে দ্বিগুন! তাই তিনি নেসাব পরিমাণ সম্পদের মালিক বিবেচিত হবেন […]

    প্রশ্ন: মৃত ব্যক্তির নামে ওমরা পালন করলে ওমরা কার পক্ষ হতে আদায় হবে?

    উত্তর: ওমরার যাবতীয় বিধি-বিধান হজের মতই। অর্থাৎ যেমনিভাবে মৃত ব্যক্তির নামে হজ আদায় করা যায়, তেমনি ভাবে ওমরাও আদায় করা যায়।সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সূরতে মৃত ব্যক্তির পক্ষ থেকে ওমরা পালনের নিয়ত করলে তার পক্ষ থেকেই আদায় হবে।-রদ্দুল মুহতার ২/৪৭৩, ফাতাওয়ায়ে হিন্দিয়্যাহ ১/৩২৩, মাসায়েলে রাফআত কাসেমী ১/১০৫, আপকে মাসায়েল আওর উনকা হল ৫/২৮৬ উত্তর প্রদানে-মুফতী মুহা.শামছুদ্দোহা […]

    প্রশ্ন: পেনশনের টাকা দিয়ে হজ আদায় করা যাবে কি না?

    উত্তর: হজ ফরজ হওয়ার জন্য কোন ব্যক্তি নিজ মালিকানাধীন হালাল সম্পদ দ্বারা নেসাবের মালিক হওয়াই যথেষ্ট। পেনশনের টাকা সংশ্লষ্টি ব্যক্তির মালকিানাধীন সম্পদ হিসেবে বিবেচিত হয় বিধায় অন্যান্য সম্পদের সাথে নেসাবের হিসাব করার ক্ষত্রেে পেনশনের টাকারও হিসাব করা হয়। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সূরতে পেনশনের টাকা দিয়ে হজ করা যাবে। –ফাতাওয়ায়ে শামী ৩/৫২৭, বাদায়েউস সানায়ে ৩/৪৫, ইমদাদুল […]

    Madrasha

    প্রশ্ন: কোন বৃদ্ধলোক (যিনি চলাফরো করতে কষ্ট হয় ) যদি ধনী হয় তাহলে কি তার উপর হজ ফরয হবে?

    উত্তর: শরীয়তের মূলনীতি অনুযায়ী হজ ফরয হওয়ার জন্য শর্ত হলো;আর্থিক এবং শারিরিকভাবে হজ পালনে সার্মথবান প্রমাণতি হওয়া। আর্থিকভাবে স্বচ্ছল ব্যক্তি শারীরকিভাবে অক্ষম হলওে তাঁর উপর হজ ফরজ হয়ে যায়। এক্ষত্রেে তিনি অন্য কাউকে দিয়ে বদলী হজ করিয়ে নিবেন। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত বৃদ্ধ লোকরে উপর হজ ফরজ হয়ে গেছে।  বার্ধক্যজনিত  শারীরিক অক্ষমতার কারণে তিনি স্ব-শরীরে হজ […]

    An Noor TV

    প্রশ্ন: শরয়ী দন্ডবিধি কে বাস্তবায়ন করবে? বিচারক না মুফতি?

    উত্তর: শরয়ী দন্ডবিধি মহান আল্লাহ তায়ালার হক। এ হক বাস্তবায়নের জিম্মাদারী রাষ্ট্রীয় দায়ীত্বশীলের। যা তিনি শরীয়া আদালত প্রতিষ্ঠা করে এর জন্য উপযুক্ত নিয়োগ করে বাস্তবায়ন করবেন।সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সূরতে শরয়ী দন্ডবিধি ইসলামী রাষ্ট্রের আমীর বা নির্ধারিত কাযী বাস্তবায়ন করবে। মুফতি সাহেব নয়। তবে তিনি বিচারক/কাযীর পরামর্শক বা উপদেষ্টা হিসেবে থাকবেন। বিভিন্ন বিষয়ে পরামর্শ দিয়ে সহযোগিতা […]

    An Noor TV

    প্রশ্ন: অনেক মুসল্লী ভাইদেরকে দেখা যায়, জুতা পায়ে রেখে জানাযার নামাজ আদায় করে। জানার বিষয় হলো; এই ভাবে নামাজ আদায় করার হুকুম কি?

    উত্তর: শরীয়তের মূলনীতি হলো, নামাজী ব্যক্তির নামাজের স্থান পাক হওয়া আবশ্যক। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সূরতে মুসল্লী যদি জুতা পায়ে রেখে নামাজ পড়ে, তাহলে অবশ্যই জুতার তলাসহ জমীনের ঐ অংশও পাক হতে হবে, যাতে জুতা রাখা হয়েছে। আর যদি জুতা খুলে জুতার উপর পা রেখে নামাজ পড়ে তাহলে শুধু জুতার ঐ অংশ পাক হতে হবে যা […]

    An Noor TV

    প্রশ্ন: রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের ভাষা ছিল আরবী, তাই তিনি আরবীতে খুতবা দিতেন,জানার বিষয় হলো, আমাদের মাতৃভাষায় খুতবা দেওয়া জায়েয হবে কি না? আর যদি কেউ দিয়ে ফেলে তাহলে জুমার নামায সহিহ হবে কি না?

    উত্তর: শরীয়তের মূলনীতি অনুযায়ী জুমা ও ঈদের খুতবা আরবীতে হওয়াটাই জরুরী, যা উম্মাহর ধারাবাহিক আমল দ্বারা প্রমাণিত। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সূরতে আরবী ভাষা জানা সত্তে¡ও মাতৃভাষায় খুতবা পড়া মাকরূহে তাহরীমী হবে। তবে হ্যাঁ যদি কেউ পড়ে ফেলে তাহলে তার জুমার শর্ত পাওয়া যাওয়ার কারণে কারাহাতের সাথে জুমা সহিহ হয়ে যাবে। তবে বিশুদ্ধ ও ধারাবাহিকভাবে প্রমাণিত […]

    Madrasha
    An Noor TV

    প্রশ্ন: এক ব্যক্তি জানাযার নামাযে আট তাকবীর বলে শেষ করল, এখন জানার বিষয় হলো; যদি ইমাম সাহেব চার তাকবীরের বেশি তাকবীর বলে তখন মুক্তাদিরা কী করবে? এবং উক্ত নামাযের হুকুম কী?

    উত্তর: শরীয়তের মূলনীতি হলো, যদি ইমাম সাহেব নামাযের ফরজ ও ওয়াজিব বিধানাবলী আদায় করার পর অতিরিক্ত কোন কাজে লিপ্ত হয়ে যায়, তাহলে মুক্তাদিরা ইমামের অনুসরন না করে ইমামের সালামের অপেক্ষা করবে। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সূরতে যেহেতু জানাযার নামাযের রুকন হলো চার তাকবীর বলা, তাই ইমাম চার তাকবীরের বেশি বলে অতিরিক্ত কাজই করল, অতএব বিশুদ্ধ মতানুযায়ী […]

    An Noor TV

    প্রশ্ন: আমরা জানি জুমা বা ঈদের নামাযের খুতবা শুনা ওয়াজিব, কথা বলা হারাম। জানার বিষয় হলো ইমাম সাহেব যদি খুতবাতে কোন ভুল করে ফেলেন, তাহলে উপস্থিত মুসল্লীরা লোকমা দিতে পারবে কি না?

    উত্তর: শরয়ী নীতিমালা অনুযায়ী খুতবা চলাকালীন সময়ে কথা বলা বা অন্য যে কোন কাজ করা নিষিদ্ধ। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সূরতে খতীব সাহেব কোন ভুল করলেও তাতে লোকমা দেওয়া বা সংশোধন করে দেওয়া দরকার নেই। কেননা খুতবার মাঝে হওয়া তথ্য,তত্ত বা ভাষাগত ভুলের কারণে নামাজ ভঙ্গ হবে না। তবে পরবর্তীতে আদাবের সাথে ইমাম/খতীব সাহেবেকে এব্যাপারে অবগত […]

    An Noor TV

    প্রশ্ন: অধিকাংশ মসজিদে জুমআর খুতবার পূর্বে বয়ান হয়ে থাকে, জানার বিষয় হলো যে, এই বয়ান জায়েয আছে কি না? উক্ত বয়ান চলাকালীন সময়ে নামাজ পড়া যাবে কি না?

    উত্তর: হাদীস শরীফে এসেছে রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন “দ্বীন কল্যাণ কামীতার নাম” অর্থাৎ একে অপরের কল্যাণ কামনা করা এবং মানুষকে সৎ কাজের আদেশ ও অসৎ কাজ থেকে বারণ করা। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সূরতে যেহেতু জুমার দিন নানান পেশার মানুষ একত্রিত হয়, তাছাড়া সবাইকে একসাথে করা প্রায় অসম্ভব। তাই মানুষের দ্বীনি প্রয়োজনের খাতিরে খতীব সাহেব […]

    An Noor TV

    প্রশ্ন: কেউ যদি বলে বর্তমানে কোন যুদ্ধ – জিহাদ নেই! অথচ আমরা জানি জিহাদ কিয়ামত পর্যন্ত চলতে থাকবে, এমন ব্যক্তির কি ঈমান ভেঙ্গে যাবে?

    উত্তর: জিহাদ ইসলামের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ একটি ফরজ বিধান, যা কেয়ামত পর্যন্ত পৃথিবীর যে কোন স্থানে বিদ্যমান থাকবে। কুরআন সুন্নাহ থেকে এমনটাই বুঝা যায়। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত ব্যক্তির উক্তিটি ব্যাখ্যা সাপেক্ষ। যদি তিনি পরিবেশ- পরিস্থিতি বিশ্লেষন করে জিহাদের ধারাবাহিকতা না থাকার কথা বুঝাতে চান তাহলে শরয়ী দৃষ্টিতে ঈমান শুন্য হবে না। তবে এ ধরণের কথা মানুষকে ধীরে […]

    Madrasha

    প্রশ্ন: আমার জানার বিষয় হলো, যে ব্যক্তি নামাজ পড়ে, কোরআন পড়ে, হজ্জ করে আবার হারাম কাজের বৈধতা দেয়, তার ব্যাপারে শরীয়ত কি বলে?

    উত্তর: ইসলামী আকীদা বিশ্বাস অনুযায়ী অকাট্যভাবে প্রমাণিত কোন বিধান অস্বীকার বা ঠাট্টা – বিদ্রুপ করার দ্বারা ঈমান চলে যায়, তবে অমান্য করার দ্বারা ঈমান না গেলেও মারাত্মক গুনাহগার হয়। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত ব্যক্তি যদি হারামকে হারাম মনে কওে কিন্তু কারণ বশত হারামের বৈধতা দেয়, তাহলে তাকে কাফের বলা যাবে না, তবে অবশ্যই ফাসেক বলা হবে, […]

    An Noor TV

    প্রশ্ন: শরয়ী দৃষ্টিতে রাশির বিধান কি?

    প্রশ্ন: শরয়ী দৃষ্টিতে রাশির বিধান কি? রাশিফলের উপর বিশ্বাস করা ঈমানের জন্য কতটুকু ক্ষতিকারক? এবং আমরা পত্রিকায় যে রাশিফল দেখি এর বিধান কি? এবং যারা ছাপায় তাদের বিধান কী? উত্তর: কুরআন হাদীসের বর্ণনা অনুযায়ী অদৃশ্য (গায়েব) ও ভবিষ্যতের খবর একমাত্র আল্লাহ তায়ালাই জানেন, এ ব্যাপাওে কাউকে জিজ্ঞাসা করা, বলা ও বিশ্বাস করা হারাম ও ঈমান […]

    An Noor TV

    ঈমান আকাইদ

    প্রশ্ন: কিছু কিছু জায়গার মধ্যে অকল্যাণ/ অলক্ষণ রয়েছে এটা বিশ্বাস করা কি ঠিক? উত্তর: হাদীস শরীফে আছে কোন স্থান বা কালের মধ্যে অকল্যাণ নেই। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সুরতে কোন কোন স্থানের ব্যাপারে অকল্যাণ বা কুলক্ষী হওয়ার বিশ্বাস রাখা ঠিক না। এধরনের বিশ্বাসের সাথে ইসলামের কোন সম্পর্ক নেই। তালাক, আয়াত ০৩, সুনানে আবু দাউদ ২-৫৪৭, ফাতহুল […]

    প্রশ্ন: উন্নত জীবন যাপনের আশায় দারুল হরব/মুসলিমদের সাথে যুদ্ধে লিপ্ত এমন কোন রাষ্ট্র/অঞ্চলে মুসলিমদের জন্য বসবাস করার বিধান কি?

    উত্তর: শরয়ী দৃষ্টিতে প্রয়োজনে পৃথিবির যেকোন জায়গায় বসবাসের অনুমতি রয়েছে। নিছক উন্নত জীবন যাপনের উদ্দেশ্যে দারুল হরবে বসবাসের চিন্তা করা উচিত না। কেননা বৈশ্যিক প্রেক্ষাপটে দেখা যাচ্ছে অনেক দেশই মুসলমানদের জন্য নিরাপদ নয়। কোন মুসলমান যখন কোন দেশে বসবাসের উদ্দেশ্যে যাবেন তখন ওইদেশের যাবতীয় নিয়মকানুন মেনে চলা আবশ্যক। আইন লঙ্ঘন করার অনুমতি নেই। নিরাপত্তা চুক্তি […]

    Madrasha
    An Noor TV

    প্রশ্ন: খালেদ আর বকর দুই ভাই আর যায়েদ হল তাদের মা শরীক ভাই, এখন তাদের মায়ের ১০০ শতাংশ জমি আছে। এ জমি থেকে কি যায়েদ কোন জমি পাবে? পেলে কতটুকু পাবে? উল্লেখ্য কোন বোন এবং অন্য কেউ নেই।

    উত্তর: শরয়ী বন্টন নীতি অনুযায়ী মৃত ব্যক্তির ঔরষজাত সন্তান শরয়ী আসাবা তথা নিকটাত্মীয়ের অন্তুর্ভূক্ত এবং এ হিসেবেই তারা সম্পদের মালিক হয়ে থাকেন। সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সূরতে যেহেতু যায়েদও মৃত ব্যক্তির আসাবা (নিকট আত্মীয়)। তাই অন্যান্য আসাবার সাথে সেও মিরাস পাবে এবং ১০০ শতাংশের এক তৃতীয়াংশ অর্থাৎ ৩৩.১ শতাংশ পাবে।-আদ্দুররুল মুখতার আলা রদ্দিল মুহতার ১০/৫৫০, ফাতাওয়ায়ে […]