উটের মূত্র নিয়ে কিছু নাস্তিক ও গোমূত্র পানকারীদের অপপ্রচারণা

কিছু উটকো নাস্তিক ও গোমূত্র পানকারী অনেকদিন ধরেই দাবি করে আসছে এই বলে যে, ইসলামের নবী মুসলিমদেরকে ঔষধ হিসেবে উটের মূত্র পান করার জন্য পরামর্শ দিয়েছেন। এইটা একটা মিথ্যা অপপ্রচারণা। মুহাম্মদ (সাঃ) ও তাঁর সাহাবা’রা নিজেরা যেমন কখনো উটের মূত্র পান করেননি, তেমনি আবার মুহাম্মদ (সাঃ) কোথাও মুসলিমদেরকে উটের মূত্র পান করার জন্য উপদেশ বা পরামর্শও দেননি।
তাহলে ঘটনা কী? ঘটনা হচ্ছে দু-একটি হাদিস অনুযায়ী কোনো এক গোত্রের একদল লোক মুসলিম ভান করে মুহাম্মদ (সাঃ)-এঁর কাছে এসে আশ্রয় প্রার্থনা করলে মুহাম্মদ (সাঃ) দয়া-পরবশ হয়ে তাদেরকে আশ্রয় দেন। পরবর্তীতে বিরূপ আবহাওয়াজনিত বা অন্য কোনো কারণে তারা অসুস্থ হয়ে পড়লে মুহাম্মদ (সাঃ) তাদের সাথে কিছু উট ও একজন রাখাল-সহ তাদেরকে অন্য কোনো স্থানে চলে যেতে বলেন এবং উটের দুধ ও মূত্র পান করার জন্য পরামর্শ দেন। উটের দুধ ও মূত্র পান করার পর তারা সুস্থ হয়ে উঠে রাখাল বালককে নির্মমভাবে হত্যা করে উট নিয়ে পালিয়ে যায়। সংক্ষেপে হাদিসটা এরকম। কারো বিশ্বাস না হলে মিলিয়ে দেখতে পারেন।
পয়েন্টস টু বি নোটেড:
– মুহাম্মদ (সাঃ) যাদেরকে উটের দুধ ও মূত্র (শুধু মূত্র নয়) পান করার পরামর্শ দিয়েছিলেন তারা আসলে মুসলিম ভানকারী মুনাফেক ছিল, যা পরে প্রমাণ হয়েছে।
– উটের দুধ ও মূত্র পান করার পর তারা সুস্থ হয়ে উঠেছিল। কিন্তু সুস্থ হওয়ার পর তারা রাখাল বালককে নির্মমভাবে হত্যা করে উট নিয়ে পালিয়ে যায়।
– একটি নির্দিষ্ট ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে কিছু লোককে (যারা আসলে মুনাফেক ছিল) মুহাম্মদ (সাঃ) উটের দুধ ও মূত্র পান করার জন্য পরামর্শ দিয়েছিলেন। কিন্তু মুহাম্মদ (সাঃ) কোথাও বলেননি যে মুসলিমদেরকে উটের মূত্র পান করতে হবে। এরকম কোনো কথা হাদিসে লিখা থাকলে কিছু মুসলিম অন্তত লোক লজ্জার তোয়াক্কা না করে উটের মূত্র পান করতই। কিন্তু মুসলিমরা কোথাও উটের মূত্র পান করে না। এই সাধারণ বোধটুকুও উটকো নাস্তিক ও গোমূত্র পানকারীদের নেই!
উপসংহার: হাদিস অনুযায়ী আসলে ভণ্ড-মুনাফেকদের উচিত উটের মূত্র পান করা! কেননা মুহাম্মদ (সাঃ) যাদেরকে উটের মূত্র পান করার পরামর্শ দিয়েছিলেন তারা আসলে ভণ্ড বা মুনাফেক ছিল।
(Collected)

Leave Your Comments

Your email address will not be published.