প্রশ্ন: একজন ব্যক্তির এক ছেলে ও পাঁচ মেয়ে। তিনি একেবারেই বৃদ্ধ হয়ে গেছেন। এখন তিনি তার সমস্ত সম্পত্তি তার এক ছেলেকে লিখে দিতে চান। মেয়েদেরকে কিছুই দিতে চান না। জানার বিষয় হলো, এক ছেলেকে সমস্ত সম্পত্তি লিখে দিলে কি সে ছেলে সমস্ত সম্পত্তির মালিক হয়ে যাবে? এবং এর কারণে কি তিনি গুনাহগার হবেন?

উত্তর: যদি কোনো পিতা তার জীবদ্দশায় ওয়ারিশদের মাঝে হেবা সূত্রে সম্পদ বণ্টন করতে চায় তার জন্য সর্বোত্তম পন্থা হচ্ছে, সমূদয় সম্পদ সকল ওয়ারিশদের মাঝে মীরাছের পদ্ধতিতে বণ্টন করা। তবে শরয়ী কোনো কারণে তাদের মাঝে কম বেশি করার অধিকার তার আছে। শরয়ী উযর ব্যতীত সম্পদ বণ্টনের ক্ষেত্রে কোনো ওয়ারিশকে কেবল ক্ষতি সাধন ও বঞ্চিত করার লক্ষ্যে কম বেশি করলে তিনি গুনাহগার সাব্যস্ত হবেন।

তবে শরয়ী দৃষ্টিকোণ থেকে এই বণ্টনও কার্যকর হয়ে যাবে। অতএব, প্রশ্নোক্ত বর্ণনা মতে পিতা যদি বাস্তবেই তার সমস্ত সম্পদ ছেলেকে লিখে দিয়ে মেয়েদের বঞ্চিত করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন, তাহলে বিনা কারণে বঞ্চিত করলে পিতা গুনাহগার হবেন। তবে শরয়ী দৃষ্টিকোণ থেকে এই হেবা কার্যকর ও শুদ্ধ হয়ে যাবে।

সহীহ বুখারী, হাদীস- ২৫৮৭, ফাতাওয়া কাযীখান- ৩/১৫৪, আল-বাহরুর রায়েক- ৭/২৮৮)।

Share This:

Leave Your Comments

Your email address will not be published. Required fields are marked *