প্রশ্ন: অধিকাংশ মসজিদে জুমআর খুতবার পূর্বে বয়ান হয়ে থাকে, জানার বিষয় হলো যে, এই বয়ান জায়েয আছে কি না? উক্ত বয়ান চলাকালীন সময়ে নামাজ পড়া যাবে কি না?

Shortlink:

উত্তর: হাদীস শরীফে এসেছে রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন “দ্বীন কল্যাণ কামীতার নাম” অর্থাৎ একে অপরের কল্যাণ কামনা করা এবং মানুষকে সৎ কাজের আদেশ ও অসৎ কাজ থেকে বারণ করা।

সুতরাং প্রশ্নে বর্ণিত সূরতে যেহেতু জুমার দিন নানান পেশার মানুষ একত্রিত হয়, তাছাড়া সবাইকে একসাথে করা প্রায় অসম্ভব। তাই মানুষের দ্বীনি প্রয়োজনের খাতিরে খতীব সাহেব ইচ্ছা করলে জুমার প্রথম আযানের পর এবং খুতবার আযানের পূর্বে সুন্নাতের জন্য দশ মিনিট সময় হাতে রেখে কিছু নসিহত করতে পারে, তবে এটাকে জরুরী মনে করা যাবে না। উক্ত নসিহতের সময় নামায পড়া যাবে। তবে না পড়াই ভালো।

-মুসলিম ১/৫৪, ফাতাওয়ায়ে তাতারখানিয়্যাহ ২/৫৭৫, কিফায়াতুল মুফতি ৫/২১৪

উত্তর প্রদানে-মুফতী মুহা.শামছুদ্দোহা আশরাফী ,প্রন্সিপিাল ও প্রধান মুফতী-রওজাতুল উলুম মাদরাসা মিরপুর,খতীব-সাইন্সল্যাবরটেরী কন্দ্রেীয় জামে মসজদি ধানমন্ডি,ঢাকা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *