ইসলামী রাজনীতির ভবিষ্যৎ ও আজকের প্রেক্ষাপট

Shortlink:

বাংলাদেশে কম করে হলেও কওমী ঘরনার ডজন খানিক ইসলামী রাজনৈতিক দলের অস্তিত্ব রয়েছে। এর মধ্যে কিছু সক্রিয় আবার কিছু নিষ্ক্রিয়। কিছু নিবন্ধিত আর কিছু অনিবন্ধিত। জানামতে রাজনীতির ময়দানে প্রতিটি ইসলামী দলের মূল উদ্দেশ্য হলো দেশে রাষ্ট্রীয়ভাবে খেলাফত তথা ইসলাম প্রতিষ্ঠা করা। তবে সবার উদ্দেশ্য এবং মূলনীতি এক হলেও নির্বাচনে সবাই অংশগ্রহণ করে ভিন্নভিন্ন প্রতীকে। অন্তত নির্বাচনের সময় হলেও বৃহত্তর স্বার্থে ইসলামী দলগুলো এক প্ল্যটফর্মে আসা উচিৎ জেনেও অদৃশ্য কারণে দলগুলো এক ব্যানারে আসতে পারে না। ফলে বছর যায় যুগ যায় কিন্তু ইসলামের কোনো উপকার হয় না। বরং ক্ষতি হয়।
.
যুগযুগ ধরে দেশের প্রচলিত রাজনীতিতে কওমী ঘরনার দলগুলোর সক্রিয় অবস্থান ইসলামের কতটা উপকার হয়েছে তা আজ হিসেব কষার সময় এসেছে। অন্যথায় উদ্দেশ্যহীনভাবে ইসলামের নাম বেচে রাজনীতি করার মানে হয় না। ইসলামী রাজনীতির উদ্দেশ্য যদি দেশে খেলাফত প্রতিষ্ঠা হয় তাহলে ভিন্নভিন্ন প্রতীকে নির্বাচনে অংশগ্রহণ কেনো(?) এই প্রশ্ন করার সময়ও উপস্থিত। এই দলাদলির রাজনীতি ইসলামের উপকারের চেয়ে ক্ষতিই বেশি করছে বলে মনে হয়। এই রাজনীতি আমাদের অভ্যন্তরে বৃহত্তর ঐক্যের বিপরীতে দিনদিন নানাবিধ দূরত্ব তৈরি করছে। এই রাজনীতি কিয়ামতের আগেও খেলাফত প্রতিষ্ঠা করতে পারবে মনে হয় না।
.
রাজনীতির উদ্দেশ্য যদি ইসলাম প্রতিষ্ঠা হয় তাহলে সব দলকে এক ব্যানারে আসার বিকল্প নেই। আজ যদি আমরা ঐক্যবদ্ধ হতে পারি কাল দেশে নতুন সূর্যোদয় হবে। এই রাজনীতি ইসলামের তেমন উপকার করতে না পারলেও একটি জায়গায় কিছু উপকার হয়েছে। তা হলো নানান সময় ধর্মীয় স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয়াদি নিয়ে রাজপথে জোরদার ভূমিকা রাখা। এদেশে রাজনৈতিক দলের ব্যানারে নানান সময় কওমী অঙ্গনের প্রতিবাদী যুবকরা জোরদার আন্দোলন করে নিজেদের অধিকার এবং দাবী আদায় করেছে একথা অস্বীকার করার অবকাশ নেই। তবে এসমস্ত আন্দোলন সংগ্রাম যদি এক ব্যানারে হতো! তাহলে আমরা আরো লাভবান হতাম।
.
ঐক্যবদ্ধ শক্তিই সফলতার মূল চাবিকাঠি। আন্দোলনে সফলতার জন্য ঐক্যবদ্ধ শক্তিই যথেষ্ট। যার নযীর পৃথিবীর ইতিহাসে অহরহ। ঐক্যই শক্তি ঐক্যই বল। অথচ এই রাজনীতি অনৈক্যের সৃষ্টির মূলে। আজ এই প্রেক্ষাপটে ভারাক্রান্ত কণ্ঠে বলতে হয় ইসলামের নামে সম্প্রতি ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানগুলোতে ছাত্র রাজনীতি চর্চার যে মহড়া আরম্ভ হয়েছে তা নিঃসন্দেহে কওমী মাদরাসার জন্য এক কলঙ্কময় অধ্যায়ের সূচনা। কওমী মাদরাসার শত বছরের ঐতিহ্য নষ্টের পিছনে ছাত্র রাজনীতি উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখছে। মাদরাসাগুলোর স্বকীয়তা এবং ছাত্রদের মাঝে সম্প্রীতি ধরে রাখতে প্রতিটি মাদরাসায় ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধ করা সময়ের দাবী।

maolana Ali Azam

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *