মাদকসহ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী গ্রেফতার

Shortlink:

রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার বি-ব্লকের ৯ নম্বর সড়কের একটি নির্মাণাধীন ভবনে মাদকবিরোধী অভিযান চালিয়ে দু’টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৬ জন শিক্ষার্থীসহ ৩১ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দিয়েছেন র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত। দণ্ডাদেশের পর তাদের সবাইকেই কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়। দণ্ডাদেশপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের মধ্যে ২০ জন ইন্ডিপেন্ডেন্ট ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ (আইইউবি), ৬ জন নর্থসাউথ ইউনিভার্সিটির, বাকি পাঁচজন মাদক ব্যবসায়ী বলে জানিয়েছেন র‌্যাব কর্মকর্তারা। ২৬ জনের মধ্যে চারজন নারী শিক্ষার্থীও ছিলেন। র‌্যাব-১-এর অধিনায়ক লে. কর্নেল সারোয়ার বিন কাশেম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

র‌্যাব-১-এর অধিনায়ক বলেন, ‘গত রবিবার দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত এই অভিযান চালানো হয়। জায়গাটি মাদকের আখড়ায় পরিণত হয়েছিল। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সেখানে অভিযান চালানো হয়। বসুন্ধরার আবাসিক এলাকার বি-ব্লকের ৯ নম্বর সড়কের নির্মাণাধীন এই ভবনটি ইন্ডিপেন্ডেন্ট ইউনিভার্সিটির পাশেই। এখানে সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা আড্ডাবাজি ও নিয়মিত গাঁজা সেবন করে থাকেন। মাদকের একটি বড় আখড়ায় পরিণত হয়েছিল এটি। সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত এখানে গাঁজার গন্ধ পাওয়া যেতো। আশেপাশের লোকজন বিষয়টি জানলেও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ভয়ে কেউ বাধা দিতো না। বিষয়টি র‌্যাব-১ জানতে পেরে রবিবার দুপুর ১টার দিকে ওই ভবনে আকস্মিক অভিযান চালায়।’

র‌্যাব-১ এর কর্মকর্তারা জানান, র‌্যাব সদর দফতরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলমের উপস্থিতিতে মাদকদ্রব্য সেবনের দায়ে ১৯৯০ সালের মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের ১৯(১) এর ৭(ক) মোতাবেক আহসান জামিল (২৩), রাগিব ইয়াসার আলম সামি (২১), মোবাশ্বির রহমান (২৩) রোনা ইয়ালিদ দিগন্ত (২০) জারিফ সিদ্দিক (২১) রাসেল আহমেদ (২৩), ওয়াসিফ জাহিদ (২৪) সালমা মাহমুদ (২৩), অনুপম হোসেন (২৫), তামজিদ আরিফুল হক (২৩), নির্জয় শুভ (২২), নাফিস আলীম (২৫), নামজুল হৃদয় (২২) এরশাদ দেওয়ান (২০), জারিফ আলম (২৩), সৌরভ কান্তি রায় (২৪), তৌসিফ হোসেন নিরব (২১), নূর আল হোসাইন নিলয় (২১), আবরার মো. তাহসীন (২২), তাসলিম হাসান (২২), অনিকা তাসমিন শৈলী (২২), তিসিতান আক্তার (২২) ও জেরিন আনজুমকে (২০) সাত দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়। এছাড়া ইব্রাহিম সফি (২০) নাফিস আকাশ (২১) অর্ণব সাহা (২১) তামজিদুল ইসলাম বাবর (১৯), এনামুল হক (১৮), নেকবর আলী (৪৪) শ্রী সমুন সাহা (২৬)কে ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড ও রাকিব হোসানইকে (২৪) ৯ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

র‌্যাব-১ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল সারোয়ার বিন কাশেম বলেন, ‘অভিযানের পর নর্থ সাউথ ও ইন্ডিপেন্ডেট ইউনিভার্সিটি কর্তৃপক্ষ যোগাযোগ করে দণ্ডাদেশপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের নামের তালিকা চেয়েছিল। তাদের সেই তালিকা সরবরাহ করা হয়েছে। তবে অভিযানের সময় অনেক শিক্ষার্থী চাতুর্যের আশ্রয় নিয়ে নিজেদের নাম-ঠিকানা ভুল বলেছিলেন। পরে তাৎক্ষণিক তা যাচাই-বাছাই করে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।’

র‌্যাব সূত্র জানায়, ট্রাস্ট এলায়েন্সের নির্মাণাধীন এই ভবনটির মালিককেও তারা ধরার জন্য অভিযান চালিয়েছিলেন। কিন্তু মালিক আগে থেকেই পলাতক। নির্মাণাধীন এই ভবনটিতে মাদক সেবনের পাশাপাশি বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড চলার কিছু প্রমাণ পেয়েছেন তারা।

/এনএল/এমএনএইচ/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *