বেফাকের পক্ষ থেকে সর্বনিম্ন ফিতরা ৫৫, সর্বোচ্চ ১৫০০ টাকা নির্ধারণ

Shortlink:

বাংলাদেশ কওমী মাদরাসা শিক্ষা বোর্ডের (বেফাক) মহাসচিব আল্লামা আব্দুল জাব্বার জাহানাবাদীর সভাপতিত্বে বেফাক অফিসে জাতীয় মুফতি বোর্ডের সদকাতুল ফিতর নির্ধারণ কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

জাতীয় মুফতি বোর্ডের সদকাতুল ফিতর নির্ধারণ কমিটির বৈঠকে পণ্যের বর্তমান বাজার মূল্য যাচাই করে বিভিন্ন এলাকা অনুযায়ী হাদিসে বর্ণিত পাঁচটি পণ্যের মূল্য অনুযায়ী ফিতরা নির্ধারণ করা হয়েছে।

শুক্রবার (১৭,জুন) বেফাকের পক্ষ থেকে গণমাধমে প্রেরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে ফিতরার এই পরিমাণ ঘোষণা করা হয়।

১ কেজি সাড়ে ছয়শত গ্রাম গমের আটার মূল্য ৫৫ টাকা, ৩ কেজি ৩০০ গ্রাম যবের মূল্য ২৭০ টাকা, ৩ কেজি ৩০০ গ্রাম খেজুরের মূল্য ৮২৫ টাকা, ৩ কেজি ৩০০ গ্রাম কিসমিসের মূল্য ৯০০ টাকা, ৩ কেজি ৩০০ গ্রাম পনিরের মূল্য ১৫০০ টাকা।

কোরআন ও হাদীসে নববী স.- এর বর্ণনা অনুযায়ী যে মুসলমানের ঘরে ঋন ব্যতীত সাড়ে ৫২ তোলা রূপা অথবা সাড়ে ৭ তোলা স্বর্ণ বা তার মূল্যের সম-পরিমাণ সম্পদ থাকবে বা এই পরিমাণ সম্পদের মালিক যিনি হবেন তাঁর উপর ছদকায়ে ফিতর আদায় করা ওয়াজিব।

বাংলাদেশ কওমি মাদরাসা শিক্ষা বোর্ডের মহাসচিব আল্লামা আব্দুল জাব্বার জাহানাবাদী আরো বলেন, সামর্থবান ব্যক্তিকে ঈদের জামাতে যাওয়ার পূর্বে সদকায়ে ফিতর আদায় করে যেতে হবে।

জাতীয় মুফতি বোর্ডের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন মুফতি আহমদ আলী, মুফতি নাসির উদ্দিন, মুফতি আবু ইউসুফ, মুফতি এনামুল হক জালালাবাদী, মুফতি রফিউদ্দিন ও মুফতি আমিনুল হক প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *